• সকাল ৭:৩৩ মিনিট শনিবার
  • ২৩শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ৬ই জুন, ২০২০ ইং
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁয়ে ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত নেই দুধঘাটা ও পাঁচানী সড়কে বৃষ্টি হলেই বন্যা ! মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনের মৃত্যুতে উপজেলা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের শোক বীর মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনকে রাষ্টীয় মর্যাদায় শেষ বিদায় জানালেন ইউএনও সাইদুল ইসলাম বৈরী আবহাওয়ায়ও লক ডাউন পরিবারে পৌছে যাচ্ছে এমপি খোকার খাবার সোনারগাঁয়ে ২দিনে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা গড়ে সাড়ে ৩৮% সোনারগাঁয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহত সোনারগাঁয়ে একদিনে সর্বোচ্চ ৬৩ জনের মধ্যে ২৮ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৫ জনের মৃত্যু, মৃত্যুর কারণ গোপন করছে পরিবার মৃত ব্যক্তির দেহে কতক্ষণ সক্রিয় থাকে করোনা ভাইরাস প্রধানমন্ত্রীর উপহার অসহায়দের পৌছে দিলেন চেয়ারম্যান ইঞ্জি: মাসুম সোনারগাঁয়ে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুলক নয়তো জরিমানা সোনারগাঁয়ে ৭৫ জনের মধ্যে ২৫ জনের দেহে করোনা সনাক্ত, মোট সনাক্ত ২৩৮ জান্নাতি ও জাহান্নামিদের মাঝে কথোপকথন!.. তুহিন মাহমুদ করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তিদের দাফনের ব্যবস্থা করলেন এমপি খোকার টিম বারদীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে ২ ব্যক্তির মৃত্যু লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ১৩০ তিরোধান উৎসব স্থগিত সোনারগাঁয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে মেয়ের পর মায়ের মৃত্যু প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে সোনারগাঁয়ে সোনারগাঁয়ে জিয়াউর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও ত্রাণ বিতরণ
বিপাকে কর্মহীন কারুশিল্পীরা

বিপাকে কর্মহীন কারুশিল্পীরা

Logo

রবিউল হুসাইন

করোনা মহামারীর কারণে প্রায় দুই মাস যাবৎ কর্মহীন রয়েছেন সোনারগাঁয়ের শতাধিক কারুশিল্পী। করোনা প্রাদুর্ভাবের জন্য এখানকার কারুশিল্পীরা তাদের কারুপণ্য উৎপাদন ও বিপণন করতে না পেরে চরম আর্থিক সংকটের মধ্যে পড়েছেন। সমাজের অসহায় ও দুস্থ পরিবারকে সরকার বিভিন্ন সাহায্য-সহযোগিতা দিলেও এই কারুশিল্পীরা পাচ্ছেন না কোনো সহায়তা। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে বেশ কষ্টে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে কারুশিল্পী পরিবারগুলোকে। সোনারগাঁয়ে অবস্থিত কারুশিল্পীদের নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশের একমাত্র কারুশিল্প প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন। এই ফাউন্ডেশনের অভ্যন্তরে ৩৫ জন কারুশিল্পীর কারুপণ্যের স্থায়ী স্টল রয়েছে। করোনার কারণে এসব স্টল গত ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ। তা ছাড়া কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের নিজস্ব তালিকাভুক্ত প্রায় অর্ধশতাধিক কারুশিল্পী রয়েছেন। তারা সবাই করোনা পরিস্থিতির জন্য এখন কর্মহীন। এসব কারুশিল্পীর মধ্যে জামদানি, মৃৎশিল্প, কাঠের চিত্রিত হাতি-ঘোড়া, নকশিকাঁথা, নকশি হাতপাখা, বাঁশ ও বেতশিল্প, কাঠ খোদাই শিল্প ও পাটশিল্প অন্যতম। এসব কারুশিল্পী তাদের কারুপণ্য তৈরি ও বিক্রি করতে না পেরে দিশেহারা অবস্থায় রয়েছেন।

জামদানির শিল্পী  মোহাম্মদ আলী বলেন, প্রতি বছর ঈদের আগে আমরা জামদানি তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটালেও এবার করোনার জন্য সবাই কর্মহীন। হাতে কোনো অর্ডার নেই। জামদানির তাঁত প্রায় সবগুলোই বন্ধ রয়েছে। যে কয়টা শাড়ি বোনা হয়েছিল, সেগুলোও অর্ধেক দামে লোকসানে বিক্রি  করে দিতে হয়েছে। এ অবস্থায় কেউ আমাদের সহায়তা প্রদান করেনি। আমরা অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছি।

কাঠ খোদাই কারুশিল্পী আউয়াল মোল্লা জানান, কারুশিল্পীরা তাদের কারুপণ্য তৈরির মাধ্যমে দেশের ঐতিহ্যকে ধরে রাখছে। অথচ বর্তমান সংকটকালে এসব কারুশিল্পীর পাশে কেউ নেই। সরকারিভাবে দ্রুত দেশের সব কারুশিল্পীর জন্য বিশেষ প্রণোদনার ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান তিনি।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক মো. রবিউল ইসলাম জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে সৃষ্ট দুর্যোগে কারুশিল্পীদের কষ্টের কথা বিবেচনা করে আমরা ইতিমধ্যে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে সমস্যাগ্রস্ত কারুশিল্পীদের একটি তালিকা প্রেরণ করেছি। মন্ত্রণালয় এটি যাচাই-বাছাই করে তাদের সহায়তা প্রদান করবে বলে আশা করছি।

সূত্র: দৈনিক দেশ রূপান্তর

Logo
এই নিউজটি শেয়ার করুন...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution