• সকাল ১০:০০ মিনিট শুক্রবার
  • ২৭শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : বসন্তকাল
  • ১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
এই মাত্র পাওয়া খবর :
করোনা নয় হৃদরোগে রোগে মারা যান সোনারগাঁয়ের শরফতউল্লাহ সোনারগাঁয়ে ১৫০টি পরিবারে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে সুবর্ণগ্রাম  ঢাবি শিক্ষার্থী তুহিন মাহমুদের নেতৃত্বে সনমান্দি ইউনিয়নে স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন কোরআন ও সুন্নাহর মানদণ্ডে শবে বরাত নারায়ণগঞ্জে-করোনায়-মৃতের-সংখ্যা-বেড়ে-৭ রাস্তায় ব্যারিকেট মানে কী লক ডাউন ? রবিউল হুসাইন নারায়ণগঞ্জে ২৪ ঘন্টায় ১৩ করোনা রোগী সনাক্ত নাঃগঞ্জ ডিসির নমুনা সংগ্রহ, এসপিসহ ৩ কর্মকর্তা কোয়ারেন্টিনে নারায়ণগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৪৬ হটলাইনে ফোন করলেই পৌছে যাবে এমপি খোকার খাবার লক ডাউনে দুপুরে লোকশুন্য সোনারগাঁয়ের ব্যস্ততম স্থান মোগরাপাড়া সোনারগাঁয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু নতুন ২ জনসহ নারায়নগঞ্জে করোনা রোগীর সংখ্যা ৪০জন সোনারগাঁ লক ডাউনে কমছেনা গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সাধারণ মানুষের আনাগোনা সোনারগাঁবাসীকে নির্দয় নয় মানবিক হওয়ার আহবান ইউএনও সাইদুল ইসলামের কাল থেকে সোনারগাঁ লক ডাউন ! বুধবার থেকে পুরো নারায়ণগঞ্জ জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করোনার ভয়াবহতা দেখেও সচেতনতা আসছেনা সোনারগাঁবাসীর চিলারবাগ যুব সমাজের উদ্যোগে জীবাণু নাশক স্প্রে নারায়ণগঞ্জে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৬
মেঘনা নদীতে বালু উত্তোলন নিয়ে বালু সন্ত্রাসীদের সংঘর্ষ, আহত-৭

মেঘনা নদীতে বালু উত্তোলন নিয়ে বালু সন্ত্রাসীদের সংঘর্ষ, আহত-৭

নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম: সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে দুই বালু সন্ত্রাসীর মধ্যে সংষর্ঘ হয়েছে। এতে উভয় গ্রুপের ৭ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গতকাল বিকালে মেঘনা আনন্দবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের আনন্দবাজার এলাকার মেঘনা নদী থেকে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের প্যানের চেয়ারম্যান পানাম গাবতলী গ্রামের ইসমাইল মেম্বারের ছেলে রকি হোসেন ও মোবারকপুর গ্রামের হাসরুলের ছেলে মহসিন দীর্ঘদনি যাবৎ মেঘনা নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে। উপজেলা প্রশাসন একাধিকবার মেঘনা নদীতে অভিযান চালিয়ে তাদের ড্রেজার ভেঙ্গে দেয়ার পরও তারা ৬ মাস ধরে বালু উত্তোলন করে আসছে। গত মঙ্গলবার রাতে মেঘনা নদীতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করার জন্য ২ গ্রুপই ড্রেজার বসানোর চেষ্টা করে। এতে কে কোথায় বসাবে এ নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে দ্বন্ধ শুরু হয়। এর জের ধরে ইসমাইলের ছেলে রকি ও হাসারুলের ছেলে মহসিনের নেতৃত্ব অর্ধ শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে রকি হোসেন ও তার সাথে থাকা অনিক মিয়া ও সজিব মিয়া আহত হয়। অপরদিকে মহসিন গ্রুপের মহসিন, তাজুল, মনির রিপন ও আরিফ আহত হয়। আহতদের সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত রকি হোসেন বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আহত রকি হোসেন জানান, চাদাঁর টাকা না পেয়েই সন্ত্রাসীরা আমাকে ও আমার ড্রেজারের স্টাফদের মারধর করেছে এবং আমার হাতে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। অপর দিকে মোহসিন মিয়া জানান, হামলায় তার পক্ষের লোকজনও আহত হয়েছে।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় অভিযোগ নেয়া হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই নিউজটি শেয়ার করুন...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution