• সকাল ১১:৪৯ মিনিট সোমবার
  • ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : শীতকাল
  • ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রী হত্যার ঘটনায় ঘাতক স্বামী গ্রেপ্তার ওজন কমানো থেকে হার্টের স্বাস্থ্য, সবেরই দেখাশোনা করে পাকা পেঁপে সোনারগায়ে জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা, থানায় অভিযোগ সাদিপুরে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে কর্ভাডভ্যান দোকানে আহত-১ সোনারগাঁয়ে দুর্ধষ চুরি, মূল্যবান কাগজপত্রসহ ৪ লাখ টাকার মালামাল লুট সোনারগাঁয়ে স্ত্রীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামী পলাতক নিয়মিত সাব-রেজিষ্ট্রারের দাবিতে দলিল লিখকদের কর্মবিরতি উপজেলার প্রতিটি স্কুলে ঘুরে ঘুরে উন্নয়ন করেছি. এমপি খোকা সোনারগাঁয়ে আল আমিন হত্যায় মা-ভাইসহ আটক ৪ লোকজ উৎসবে উদীচী’র সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা বিশ্বকাপেও খেলতে পারবে না আর্জেন্টিনা শম্ভুপুরায় তৃণমূল আওয়ামী লীগ কর্মীদের মারধরের ঘটনায় ২২ জনের নামে মামলা অজ্ঞাত ৫০ সনমান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মী সম্মেলন সোনারগাঁয়ে নুনেরটেকে অসহায় মাঝে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ সোনারগাঁয়ে বিতর্কিত পাঠ্যক্রম বাতিলের দাবিতে ইসলামী ছাত্র আন্দোলন এর মানববন্ধন শম্ভুপুরা কর্মী সম্মেলনে আওয়ামীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষ আহত ১৫ সোনারগাঁয়ে এনজিও কর্মকর্তাদের কুপিয়ে টাকা ছিনতাই সোনারগাঁয়ে ২ দিন ধরে ব্যবসায়ী নিখোঁজ ত্যাগী নেতাদের সমন্বয়ে পৌর আওয়ামীলীগ গঠন হবে. পৌরসভা সম্মেলনে নেতারা স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃতি করে ইউপি চেয়ারম্যানের বক্তব্য \ মুক্তিযোদ্ধাদের নিন্দা
মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় আবার বাশ

মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় আবার বাশ

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:

মাহে রমজান ও ঈদকে সামনে রেখে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা ঐতিহাসিক গ্রান্ডট্যাংক রোড যানজটমুক্ত রাখতে প্রশাসনের উদ্যোগে আবারও বাশ লাগিয়ে ভারী যানবাহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের এ উদ্যোগে সাধুবাদ জানিয়েছেন সুশীল সমাজ।

এর আগে গত মাস চারেক আগে একে ভাবে বাশ দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছিলো প্রশাসন কিন্তু অজ্ঞাত কারণে দুদিন পর সেই বাশ রাতের আধারে অপসারন করা হয়েছিলো।

জানা গেছে, উপজেলার বৈদ্যেরবাজার এলাকায় আমান সিমেন্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠে। সোনারগাঁয়ে কিছু দালালের মাধ্যমে হাড়িয়া এলাকায় কিছু জমি কিনে বালু ভারাট শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। পরে প্রতিষ্ঠানটি জোড় পূর্বক অন্যের জমি ও সরকারী খাস জমি ও নদীর ভরাট করে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলার কাজ শুরু করে। ওই সময় এলাকাবাসীর বাধার মুখে পড়ে কিছুদিন কাজ বন্ধ থাকার পর আমান সিমেন্ট কোম্পানীটি আমান ইকোনোমিক জোনের পরিনত হয়ে নিজেদের ইচ্ছা মতো অন্যের জমি খাল-বিল ভরাট করে রাতারাতি আমান ইকোনোমিক জোন নির্মান শুরু করে। ইকোনোমিক জোন তৈরী করার মতো অবকাঠামো ও রাস্তাঘাট না থাকার পরও এক হিসেবে জোড় পূর্বক ইকোনোমিক জোনটি তৈরী করা হয়। বর্তমানে এ জোনে আমান সিম নামের একটি প্রতিষ্ঠান চালু হয়েছে বাকিগুলি চালুর পথে। এ প্রতিষ্ঠানের দুই শতাধিক ট্রাক ও লরি মোগরাপাড়া চৌরাস্তার গ্রান্ডট্যাংক রোড় ও পৌরসভার টিপরদী সড়ক হয়ে হাড়িয়া ইকোনোমি জোনে প্রবেশ করে। এসব ভারী যানবাহন চলাচলের জন্য সড়ক ও জনপথের কোন অনুমতি না থাকার পরও আমান ইকোনোমিক জোনের দোহাই দিয়ে চলাচল করছে। ফলে এ সড়কগুলোতে দেখা দিয়ে বড় ফাটল। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে ভারী যানবাহন চলাচলের ফলে রাস্তা ফেলে ঢালু হয়ে পিচ উঠে গিয়ে কয়েকটি স্থানে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে অযোগ্য হয়ে পড়ছে এ রাস্তাগুলো। এছাড়া ভারী যানবাহন চলাচলের ফলে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় প্রতিদিন সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ যানজট। প্রতিদিনই সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মহাসড়ক থেকে শহীদ মজনু পার্ক পর্যন্ত অসহনীয় যানজট লেগে থাকে। ২ মিনিটের রাস্তা গাড়ী দিয়ে পেরুতে লাগে ২০/২৫ মিনিট। এতে চরম ভোগান্তীতে পরতে হয় সাধারন মানুষকে। এ যানজট নিরসনে প্রশাসনে উদ্যোগে একাধিকবার পদক্ষেপ নেওয়ার অনরোধ জানানোর পর প্রশাসন যানজট নিরসনে জোড়ালো কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। ফলে বাধ্য হয়ে প্রতিদিনের এ কৃত্রিম যানজট সহ্য করতে হয়েছে এ পথে চলা কয়েক হাজার যাত্রী সাধারনকে। এ যানজট নিরসনে মাস চারেক আগে প্রশাসনের উদ্যোগে বাশ দিয়ে এ পথে ভারী যানবাহর চলাচল বন্ধ করে দেয়। কিন্তু বন্ধ করার দু দিনের মাথায় রাতের আধারে বাশ সরিয়ে নেওয়া হয়। এদিকে, আগামী ঈদ উল ফেতরকে সামনে রেখে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকা যানজটমুক্ত রাখতে মহাসড়ক থেকে গ্রান্ডট্যাংক রোড়ের প্রবেশ মূখে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা ও শহীদ মজনু পার্ক এলাকায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বাশ দিয়ে ভারী যানবাহন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতে স্বস্থি মেলে স্থাণীয় লোকজন ও দুরপাল্লার যাত্রীদের মাঝে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে যানজটমুক্ত ছিলো এ সড়কটি। প্রশাসনের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন সুশীল সমাজের লোকজন। তারা জানান, ঈদকে সামনে রেখে নয় সব সময়ের জন্য সকাল থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এ পথে ভারী যানবাহন বন্ধ করে দেওয়া হওক। এ জন্য তারা স্থানীয় সাংসদের হস্তেক্ষেপ কামনা করেছেন।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution