• সকাল ৯:৪১ মিনিট বৃহস্পতিবার
  • ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
আশরাফুল ইসলাম মাকসুদেরর গণসংযোগ সোনারগাঁয়ের সোয়াইব হত্যার রায় পিছিয়ে ৩০ নভেম্বর ধার্য্য সোনারগাঁয়ে মাদ্রাসার শিক্ষককে পিটিয়ে জখম করলো ছাত্র সোনারগাঁয়ে গবাদি পশুকে বিনামুল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান সোনারগাঁয়ে ১২ জনের নমুনায় ৩ জনের দেহে করোনা সনাক্ত, মোট সনাক্ত ৬৮৭ এমপি খোকাকে নিয়ে কুরুচিপুর্ণ বক্তব্য প্রদানকারী জাহাঙ্গীরকে অব্যাহতি এমপি’র বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের প্রতিবাদে জাতীয় পার্টির প্রতিবাদ সভা সোনারগাঁয়ে ঈদগাহর জমি দখলের পায়তারা, বিক্ষোভ মিছিল সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগকে শোকজ ! কলাপাতা রেষ্টুরেন্টের নতুন সংযোজন জন্মদিনের কেক সোনারগাঁয়ে ৮ জনের নমুনায় ৩ জনের দেহে করোনা সনাক্ত আমি বিএনপি করি স্যার জানে ফোনালাপে অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া আমি নারী তাই মেয়র নির্বাচিত হলে নারী উন্নয়নর কাজ করবো.. ঝরা বির্তক পিছু ছাড়ছে না নাম ফলকের তড়িঘড়ি করে লাগানো হলো সোনারগাঁও জি আর ইনিষ্টিটিউশনের নাম ফলক এ বছর হচ্ছে না সোনারগাঁও পৌরসভা নির্বাচন শ্রমিকলীগ সভাপতি মন্টুর আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া সোনারগাঁয়ে গোরস্থানের জমি দখলের পায়তারার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সোনারগাঁয়ে দুটি দোকানে আগুন, ৪০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই জমি লিখে না দেয়ায় আলাউদ্দিন বাহিনীর তান্ডব, বাড়িঘর ভাংচুর আহত ৬
ড. কামালের বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা মানহানীর মামলা করতে পারেন

ড. কামালের বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা মানহানীর মামলা করতে পারেন

Logo


শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর সম্পৃক্ততা নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে ক্ষেপে যান গণফোরাম সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের আহবায়ক ড. কামাল হোসেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন ‘খামোশ’ চিনে রাখবো, চিনে রাখবো। পয়সা পেয়ে শহীদদের অশ্রদ্ধা করো তোমরা, আশ্চর্য।’ ড. কামাল হোসেনের এমন মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ নেতারা। দলটির নেতারা মনে করেন, ড. কামাল সাংবাদিক সমাজকে হেয় করেছেন। সাংবাদিকদের নিয়ে কটূক্তি করেছেন। চাইলে সাংবাদিকরা আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেন।

শুক্রবার মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে যান ড. কামাল। এ সময় যমুনা টেভিশনের এক রিপোর্টার ড. কামাল হোসেনকে প্রশ্ন করেন ‘জামায়াতের বিষয়ে আপনাদের সবশেষ অবস্থান কী? তারা আর আপনারা তো একই মার্কায় নির্বাচন করছেন।’ এমন প্রশ্ন শুনেই তেলে-বেগুনে ক্ষেপে যান ড. কামাল। এমনকি ওই রিপোর্টারের নাম জানতে চান। কত পয়সা পেয়েছেন এই প্রশ্নগুলো করতে? চিনে রাখবো, চিনে রাখবো। পয়সা পেয়ে শহীদদের অশ্রদ্ধা করো তোমরা, আশ্চর্য।’ ‘খামোশ’ ইত্যাদি। বুদ্ধিজীবী দিবসে এমন মন্তব্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সমালোচনা উঠেছে রাজনৈতিক অঙ্গণেও।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, ড. কামাল হোসেন সাংবাদিক সমাজকে হেয় করেছেন, কটূক্তি করেছেন। সাংবাদিকদের নিরপেক্ষতা ও সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁর মুখে এটা সাজে না। তিনি একজন সংবিধান প্রণেতা ও সংবিধানের সবকিছু তাঁর জানা। তিনি নিরপেক্ষ সাংবাদিকতায় বিশ্বাস করেন না। সাংবাদিকরা চাইলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা হিসেবে মানহানির মামলা করতে পারেন।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, ড. কামাল একজন আইনজ্ঞ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। তিনি সারাজীবন স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে বলছেন। কিন্তু স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট করে নির্বাচন করছে। এখানে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করতেই পারেন। সম্পাদনা : সমীরণ, রেজাউল আহসান, আমাদের সময়


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution