• সন্ধ্যা ৭:১৯ মিনিট শনিবার
  • ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সাদিপুরে কনফিডেন্স এর উদ্যোগে ১ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা ইঞ্জিনিয়ার মাসুমের উদ্যোগে স্বজনদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ মোবারক হোসেন স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ যাত্রীবাহি প্রাইভেট উঠার আগে সাবধান. ওসি হাফিজুর ইসলাম সোনারগাঁয়ে ২ মহিলাসহ ৪ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে রূপায়ন কোম্পানির উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ পচা মাংস বিক্রির অপরাধে মদনপুরে কসাইকে জরিমানা সোনারগাঁয়ে যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা মানছেনা স্বাস্থ্যবিধি মামুনুল কান্ডে ভাংচুরের ঘটনায় হেফাজত কর্মী গ্রেফতার প্রতিবন্ধি যুবকের পাশে দাড়ালেন ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম ছুটির দিনে সোনারগাঁয়ে মার্কেটগুলোতে উপচে পড়া ভীড় সোনারগাঁয়ে ৩ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ের ব্যাংকগুলোতে লেনদেন করতে গ্রাহকদের উপচে পড়া ভীড় শেখ রাসেল স্টেডিয়াম প্রকল্প দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ এমপি খোকার বেগম খালেদা জিয়া ও মান্নানের সুস্থতা কামনা দোয়া ও কোরআন বিতরন প্রধানমন্ত্রীর সাইকেল উপহার পেল গ্রাম পুলিশের সদস্যরা সোনারগাঁ নতুন করে ৩ জনের দেহে করোনা সনাক্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সক্রিয় ডাকাত দলের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার ৫০০শত অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ দাইয়ান মেম্বারের করোনায় কর্মহীন মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ বিতরন
ড. কামালের বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা মানহানীর মামলা করতে পারেন

ড. কামালের বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা মানহানীর মামলা করতে পারেন

Logo


শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর সম্পৃক্ততা নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে ক্ষেপে যান গণফোরাম সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের আহবায়ক ড. কামাল হোসেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন ‘খামোশ’ চিনে রাখবো, চিনে রাখবো। পয়সা পেয়ে শহীদদের অশ্রদ্ধা করো তোমরা, আশ্চর্য।’ ড. কামাল হোসেনের এমন মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ নেতারা। দলটির নেতারা মনে করেন, ড. কামাল সাংবাদিক সমাজকে হেয় করেছেন। সাংবাদিকদের নিয়ে কটূক্তি করেছেন। চাইলে সাংবাদিকরা আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেন।

শুক্রবার মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে যান ড. কামাল। এ সময় যমুনা টেভিশনের এক রিপোর্টার ড. কামাল হোসেনকে প্রশ্ন করেন ‘জামায়াতের বিষয়ে আপনাদের সবশেষ অবস্থান কী? তারা আর আপনারা তো একই মার্কায় নির্বাচন করছেন।’ এমন প্রশ্ন শুনেই তেলে-বেগুনে ক্ষেপে যান ড. কামাল। এমনকি ওই রিপোর্টারের নাম জানতে চান। কত পয়সা পেয়েছেন এই প্রশ্নগুলো করতে? চিনে রাখবো, চিনে রাখবো। পয়সা পেয়ে শহীদদের অশ্রদ্ধা করো তোমরা, আশ্চর্য।’ ‘খামোশ’ ইত্যাদি। বুদ্ধিজীবী দিবসে এমন মন্তব্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সমালোচনা উঠেছে রাজনৈতিক অঙ্গণেও।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, ড. কামাল হোসেন সাংবাদিক সমাজকে হেয় করেছেন, কটূক্তি করেছেন। সাংবাদিকদের নিরপেক্ষতা ও সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁর মুখে এটা সাজে না। তিনি একজন সংবিধান প্রণেতা ও সংবিধানের সবকিছু তাঁর জানা। তিনি নিরপেক্ষ সাংবাদিকতায় বিশ্বাস করেন না। সাংবাদিকরা চাইলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা হিসেবে মানহানির মামলা করতে পারেন।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, ড. কামাল একজন আইনজ্ঞ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। তিনি সারাজীবন স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে বলছেন। কিন্তু স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট করে নির্বাচন করছে। এখানে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করতেই পারেন। সম্পাদনা : সমীরণ, রেজাউল আহসান, আমাদের সময়


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution