• সকাল ১০:১২ মিনিট শুক্রবার
  • ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : বসন্তকাল
  • ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁও জাদুঘরের কারুশিল্পীদের দোকান বরাদ্দে উচ্চ আদালতে রিট ২ কোটি টাকা ব্যয়ে ওয়াটার সাপ্লাই পাইপের উদ্ধোধন সোনারগাঁয়ে ৭ হাজার ৭ শত পিস ইয়াবাসহ আটক ৩ ভোটারদের স্মার্ট কার্ড তুলে দিলেন চেয়ারম্যান শিপলু মাসব্যাপী লোকজ ও মেলা নিয়ে মত বিনিময় সভা আবারও চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহাগ রনি’র উদ্যোগে রাস্তা সংস্কার সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে হত্যা মামলায় জড়ানোর অভিযোগ চরিত্র থেকে বেরিয়ে আসা যন্ত্রণাদায়ক: জয়া বুধবার ১০ জনের নমুনা পরিক্ষায় ১ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে বান্ধবীর সহায়তায় কিশোরীকে ধর্ষণ, বান্ধবী গ্রেপ্তার আল- মোস্তফা গ্রুপের জমি দখলের অভিযোগ আনন্দ শিপ ইয়ার্ডের বিরুদ্ধে টেকনাফে নারায়নগঞ্জের পর্যটকের লাশ উদ্ধার সোনারগাঁয়ে ১১ জনের নমুনায় ১ জনের দেহে করোনা সনাক্ত নয়াগাঁও’য়ে সংষর্ঘের ঘটনায় আলী আহম্মেদ নামে আরেক জনের মৃত্যু ইজিবাইক ডাম্পিং দেয়ায় ছুরি চালিয়ে চালকের আত্মহত্যার চেষ্টা না.গঞ্জেও সংসার ছিল ক্রিকেটার নাসিরের স্ত্রীর জিন্নাহ এর উদ্যোগে সনমান্দীতে ভাষা সৈনিকদের সংবর্ধণা ও স্মৃতিচারণ সোনারগাঁয়ে সমাজ সেবা ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু নয়াগাঁওয়ের সংঘর্ষের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের মান্নানের পক্ষে আল-মুজাহিদ মল্লিক ও মাসুমের উদ্যোগে জেলায় একুশের র‌্যালী
মোদির নিজেরই নাগরিকত্ব সনদ নেই!

মোদির নিজেরই নাগরিকত্ব সনদ নেই!

Logo


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাগরিকত্বের কোনও কাগজপত্র নেই। জন্মসূত্রেই তিনি ভারতীয় নাগরিক। তথ্য অধিকার আইনে (আরটিআই) মোদির নাগরিকত্ব নিয়ে এক ব্যক্তির প্রশ্নের জবাবে এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর দফতর। তবে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের এই উত্তর অস্পষ্ট বলে দাবি করেছেন সচেতন মহল।

২০১৯-এর ডিসেম্বর মাসে সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (ক্যাব) পাশ হয়। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের স্বাক্ষরের পর তা বিলে পরিণত হয়। একইসঙ্গে সংসদে দাঁড়িয়ে দেশজুড়ে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) চালু করার কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এরপর থেকেই বিতর্ক মাথাচাড়া দেয়। জানা যায়, নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে হলে নির্দিষ্ট নথি দেখাতে হবে। নাগরিকত্বের সার্টিফিকেট দেখাতে হবে।

এর বিরুদ্ধে দেশজুড়ে স্লোগান ওঠে, ‘কাগজ আমি দেখাব না’। নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য নথি না দেখানোর দাবিতে বিরোধীদলগুলি আন্দোলনে নামে। তারপরেও সাধারণ মানুষের ভয় কাটেনি। তারা কীভাবে নাগরিকত্ব প্রমাণ করবেন, তা ভেবে হন্যে হচ্ছেন।

এর পরেই ১৭ জানুয়ারি শুভঙ্কর সরকার নামে এক ব্যক্তি আরটিআই-এর মাধ্যমে জানতে চান প্রধানমন্ত্রীর নাগরিকত্বের কাগজপত্র আছে কি না।

এর জবাবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের সচিব প্রবীণ কুমার জানান, ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইনের ৩ নম্বর ধারা অনুযায়ী জন্মসূত্রেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভারতীয় নাগরিক। তাই নথিভুক্তকরণের মাধ্যমে ভারতীয় হলে যে সার্টিফিকেট মেলে, তা প্রধানমন্ত্রীর কাছে থাকার প্রশ্নই উঠছে না।

তবে এমন জবাবে অস্পষ্টতা রয়েছে বলে দাবি করেছেন ওয়াকিবহাল মহল। এছাড়া সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে বিক্ষোভের মধ্যেই এই তথ্য চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে দেশটিতে রাজনৈতিক মহলে।

সমালোচকদের ভাষ্য, খোদ প্রধানমন্ত্রীর নাগরিকত্বের সার্টিফিকেট নেই। অথচ তিনি জন্মসূত্রে ভারতীয় বলে দাবি করেন। এতে করে আমজনতার কাছে ভারতীয় হওয়ার প্রমাণ চাওয়া হচ্ছে। এ কেমন ধরণের আইন?

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে দেশজুড়ে বিক্ষোভের মধ্যেই এই তথ্য চাঞ্চল্য তৈরি করেছে। বিশেষত, আসামে কথিত নাগরিকপঞ্জিতে ঠাঁই না পাওয়ায় বহু মানুষকে বন্দিশিবিরে পাঠানো হয়েছে। ফলে প্রশ্ন উঠেছে, এরপর নাগরিকত্বের নথি চাওয়া হলে আমজনতাও যদি জন্মসূত্রে নাগরিকত্বের দাবি তোলে, তা কি গ্রাহ্য হবে?

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর আগে একাধিক বার জানিয়েছে, ২০১১ ও ২০১৫ সালের জাতীয় জনগণনা পঞ্জি প্রক্রিয়ার পর দেওয়া পরিচয়পত্র যাদের কাছে নেই তারা নাগরিক নন। ভারতীয়দের একটি বড় অংশের কাছেই সেই পরিচয়পত্র নেই। ফলে বিরোধীরা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছে, তাহলে বিজেপি কাদের ভোটে জিতলো? অনাগরিকদের ভোটে? বিজেপি-র পক্ষ থেকে অবশ্য এর কোনও উত্তর মেলেনি।

সূত্র: আনন্দবাজার।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution