• রাত ৮:০৮ মিনিট বুধবার
  • ১লা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ১৪ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
পিরোজপুরে ৪টি বসত ঘরে আগুন মাহে রমজান উপলক্ষে সনমান্দী ইউনিয়নে অসহায়দের মাঝে ত্রান বিতরণ সোনারগাঁয়ে ট্রাক চাপায় মামা-ভাগ্নে নিহত মৃত শিশুকে কবর দেওয়াকে কেন্দ্র করে শিশুর স্বজনদের বাড়ীতে হামলা রোজা ও পহেলা বৈশাখের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আহবায়ক কমিটি সোনারগাঁয়ে চলছে ঢিলেঢালা লকডাউন সোনারগাঁয়ে করোনা আক্রান্ত নিম্নমূখী, ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৭ এবারও করোনা গ্রাস করেছে পহেলা বৈশাখ তারাবিসহ সকল নামাযে ২০ জন অংশ নিতে পারবে রাস্ট্র বিরোধী কর্মকান্ডের অভিযোগে সাবেক চেয়ারম্যানের ছেলে গ্রেফতার সোনারগাঁয়ে ২৪ ঘন্টায় ৯ জনের দেহে করোনা সনাক্ত, মোট সনাক্ত ১০৪০ র‍্যাবের হাতে আটক চার হেফাজত নেতা তিনদিনের রিমান্ডে হেফাজতে ইসলাম ইস্যুতে ও করোনা মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধ আহ্বায়ক কমিটি করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন নিলেন ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ দিয়ে প্রজ্ঞাপন সোনারগাঁয়ে ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ১, আক্রান্ত ২০,সুস্থ ৮ মাওলানা মহিউদ্দিন খাঁন ও ইকবাল হোসেন র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার সোনারগাঁয়ে একদিনে হেফাজত ইসলামের ১০ কর্মী গ্রেফতার অপ্রতিরোধ্য নিগার, এক ম্যাচ পর আবার সেঞ্চুরি সাধারণ ছুটির ঘোষণা আসছে, কাজ করছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ
স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দিলেন পুলিশ কনস্টেবল!

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দিলেন পুলিশ কনস্টেবল!

Logo


মাদারীপুর পৌরসভার টিবি ক্লিনিক সড়কে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মোক্তার হোসেন নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে। নির্যাতিত ওই ছাত্রীকে রোববার রাতে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, মাদারীপুর পুলিশ লাইনের পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন দীর্ঘদিন থেকে শহরের টিবি ক্লিনিক সড়কে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন। কয়েকদিন আগে মোক্তারের গর্ভবতী স্ত্রী গ্রামের বাড়ি চলে যান। এই সুযোগে রোববার রাতে প্রতিবেশী এক স্কুলছাত্রীকে ঘরে ডেকে নেন তিনি। পরে দরজা বন্ধ করে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা বাইরে থেকে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। পরে পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন স্কুলছাত্রীকে ঘরের পেছনের ভেন্টিলেটর দিয়ে বাইরে ফেলে দেন। এতে ওই ছাত্রীর গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

নির্যাতিত ওই ছাত্রী বলে, মোক্তার হোসেন আমাকে তার ঘরে ডেকে নিয়ে দরজা বন্ধ করে আমার সঙ্গে খারাপ কাজ করেছে। পরে স্থানীয়রা টের পেয়ে বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিলে আমাকে তিনি ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেন। এতে আমার পা ভেঙে গেছে। এর আগে তিনি আমাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোক্তার হোসেনের কয়েকজন প্রতিবেশী জানান, দীর্ঘক্ষণ ঘরের মধ্যে ওই মেয়েকে নিয়ে থাকায় আমাদের সন্দেহ হয়। পরে আমরা বাইরে থেকে ঘরের দরজা বন্ধ করে দিলে তিনি মেয়েটিকে ভেন্টিলেটর দিয়ে বাইরে ফেলে দেন।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মফিজুল ইসলাম লেলিন জানান, মেয়েটির পায়ের হার ভেঙে গেছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তার সেরে উঠতে কমপক্ষে ৩ মাস সময় লাগবে।

অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। শুধু শুধু স্থানীয়রা ঘরের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিয়েছিল। ওই মেয়ের সঙ্গে আমার কিছু হয়নি।

বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে আপনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করলে আপনি পুলিশ সুপার বা ওসির সাহায্য নেননি কেন? এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন উত্তর দিতে পারেননি।

মাদারীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. বদরুল আলম মোল্লা বলেন, আমি সদর হাসপাতালে গিয়ে মেয়েটির সঙ্গে দেখা করে এসেছি। মেয়েটির পরিবারের সদস্যদের সকল আইনগত সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দিয়ে এসেছি। যে পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে অভিযোগ করা হয়েছে তার বিরুদ্ধেও আমরা গুরুত্বসহকারে তদন্ত করছি। তদন্তে দোষ প্রামাণ হলে পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution