• সকাল ৬:০২ মিনিট বুধবার
  • ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
যুবদলের প্রতিষ্টা বার্ষিকীতে খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া সোনারগাঁয়ে ১১ জনের নমুনায় ৪ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে মহাসড়কে দূর্ঘটনায় মহিলা নিহত সোনারগাঁয়ের মেঘনা নদী থেকে ৩ হাজার মিটার জাল জব্দ মেয়র প্রার্থী ডালিয়া লিয়াকত এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সোনারগাঁয়ে সোয়াইব হত্যার মামলার রায় ৯ নভেম্বর প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিল চেয়ে সরকারকে লিগ্যাল নোটিশ মেয়র নির্বাচিত হলে মসজিদের পাশাপাশি মন্দির উন্নয়নে কাজ করবো.. নাসরিন ঝরা সোনারগাঁয়ে নতুন করে ২ জনের দেহে করোনা সনাক্ত মেয়র প্রার্থী ছগীর আহম্মেদের পূজা মন্ডব পরিদর্শন ও আর্থিক সহায়তা প্রদান জাতীয়পার্টির নেতাকে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার সোনারগাঁয়ে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট এর উদ্যোগে বস্ত্র বিতরণ সাদিপুরে বিভিন্ন পূজা মন্ডপে চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ মোল্লার অনুদান ডালিয়া লিয়াকতের পূজা মন্ডব পরিদর্শন ও আর্থিক সহায়তা প্রদান সোনারগাঁয়ে ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে ইউএনও’র উপর হামলা সোনারগাঁয়ের হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে পুলিশের উপহার আজ সাবেক এমপি কায়সার হাসনাতের জম্মদিন সোনারগাঁয়ে দৃষ্টিনন্দন কাঁশবন বিক্রির হিড়িক সংঘর্ষের আশঙ্কা সোনারগাঁয়ে ১৪ দিন ধরে যুবক নিখোঁজ ক্যান্সার আক্রান্ত সহপাঠির চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন ইউএস বাংলার এমডি
ডেমরায় বাস চাপায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু, বিক্ষোভ গাড়ী ভাংচুর

ডেমরায় বাস চাপায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু, বিক্ষোভ গাড়ী ভাংচুর

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকমঃ

নগরীর ডেমরায় বাস চাপায় ইবনে তাহছিম ইরাম (১৮) নামে স্থানীয় এক কলেজ ছাত্রের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়েছে। এ সময় তার মাথার একপাশ থেতলে গিয়ে মগজ বেরিয়ে যায়। শুক্রবার দুপুরে ডেমরা-রামপুরা সড়কের মোস্তমাঝির মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইরাম ডেমরার আমুলিয়া পূর্ব পাড়ার মো. দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। ছেলেটি ডেমরার গোলাম মোস্তফা স্কুল এন্ড কলেজের বানিজ্য বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র বলে জানা গেছে। ঘটনাটি স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে মৃতের লাশ তার পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে বাড়ীতে নিয়ে যায়।

এদিকে ঘাতক বাসটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় খবর পেয়ে রামপুরা থেকে ট্রাফিক পুলিশ রমজান পরিবহনের ওই বাসটিসহ (ঢাকা মেট্রো ব-১৫-৩৬৮৭) চালক মো. শামীম ও হেলপার মুন্না মিয়াকে আটক করতে সক্ষম হন। তবে এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও কলেজ শিক্ষার্থীরা ডেমরার আমুলিয়া, ষ্টাফ কোয়ার্টার ও সুলতানা কামাল সেতু এলাকায় বেশ কয়েকটি গাড়ী ভাঙচুর করে বিক্ষোভ করে সড়ক অবরোধ করে রাখে। এ ঘটনায় ডেমরাÑরামপুরা ও ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন গ্যারেজে গিয়েও বেশ কয়েকটি বাস ভাঙচুর করে। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা স্থানীয় সাংবাদিকদের ছবি তুলতেও বাঁধা দেয়। এ সময় ডেমরার ষ্টাফ কোয়ার্টার এলাকাটি রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, নিহত ইরাম দুপুরে খেলা শেষে সাইকেলযোগে মোস্তমাঝির মোড় হয়ে বাড়ী ফিড়ছিল। এ সময় ষ্টাফ কোয়ার্টার থেকে ছেড়ে আসা রামপুরাগামী রমজান পরিবহনটি ইরামকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে রামপুরায় গিয়ে বাসটিসহ হেলাপার ও চালক আটক হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করে রামপুরা ট্রাফিক জোনের টিআই বিপ্লব ভৌমিক জানায়, কলেজ ছাত্র ইরামের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর পেয়ে রামপুরাজোনের ট্রাফিক পুলিশ চালক ও হেলপারকে বাসসহ কৌশলে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। তাদের অবশ্যই আইনের আওতায় এনে সঠিক বিচার করবে প্রশাসন।

সরেজমিন দেখা গেছে, বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীরা রামপুরা সড়কের আমুলিয়ায় গাছের গুঁড়ি ও ঢালাই পাইপ ফেলে সড়ক অবরোধ করে রেখেছে। ডেমরার ষ্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় টায়ার জালিয়ে সড়ক অবরোধ করে রেখেছে। পুলিশ কোন পদক্ষেপ নিতে পারছেনা। স্থানীয় সাংবাদিকদেরও ছবি তুলতে দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা। ক্যামেরা বা মোবাইল ফোন হাতে নিলেই তারা উত্তেজিত হয়ে উঠছে। এদিকে মীরপাড়া এলাকায় গ্যারেজে রাখা অন্তত ৩৫ টি গাড়ী ভাঙচুর করে। তাছাড়া এলাকার অন্যান্য সব গ্যারেজে গিয়ে শিক্ষার্থীরা বাস ভাঙচুর করে।

বিক্ষোভের সময় উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা জানায়, ডেমরার যাত্রীবাহী বাসগুলোর চালক ও হেলপাররা সব অদক্ষ ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক। তার নেশাগ্রস্থ হয়ে সড়কে অনেক বেপরোয়া হয়ে গাড়ী চালালেও পুলিশ কিছু বলেনা। ডেমরা থানা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশদের মাসোহারা দিয়ে অপ্রাপ্ত বয়স্করা গাড়ী চালায় বলে ডেমরার সড়কে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা হচ্ছেই। প্রশাসন সঠিক ব্যবস্থা নিলে এমন হতোনা। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা দুই দিনের বিক্ষোভ ঘোষণা করে ষ্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় সব গাড়ী চলাচল বন্ধ করে দেয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ডেমরা জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. রবিউল ইসলাম বলেন, বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা প্রথমে ভাঙচুর করলেও পুলিশের উপস্থিতির পর তারা রাস্তায় শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করছে। এদিকে মৃতের লাশ সুরতহাল শেষ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তাছাড়া চালক ও হেলপার আটক রয়েছে।

তবে এ নিউজ লেখা পর্যন্ত শুক্রবার বিকালেও ডেমরায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছিল। পরবর্তীতে ওই দিন বিকালে ওয়ারী জোনের ডিসি মো. ফরিদ উদ্দিন ষ্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় এসে প্রথমে বিক্ষুব্ধ জনতা ও শিক্ষার্থীদের অভিযোগ শোনেন।

এ সময় শিক্ষার্থীরা জানায়, ডেমরায় সব ধরণের যানবাহন বেশিরভাগ সময় হেলপাররা চালায়। চালক থাকলেও তার লাইসেন্সবিহীন ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক। তারা প্রায়ই নেশাগ্রস্থ থাকে বলে গতি নিয়ন্ত্রণ রাখেনা। তাছাড়া যানবাহনগুলোর বেশিরভাগই কাগজপত্রহীন। ষ্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় ফুট ওভার ব্রীজের দাবি করে শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি সড়কে প্রয়োজনীয় স্পীড ব্রেকার তৈরীর দাবিও জানায় তারা। পরে জবাবে ডিসি ফরিদ উদ্দিন বিক্ষুব্ধদের দাবি যৌক্তিক দাবিগুলো মেনে নিয়ে যথাযোগ্য সমাধানের আশ্বাস দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ারী জোনের এডিসি ইফতেখায়রুল ইসলাম, ডেমরা জোনের এসি মো. রবিউল ইসলাম, ডেমরা থানার ওসি মো. সিদ্দিকুর রহমান, ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদপুত্র (ঢাকা-৫) মশিউর রহমান মোল্লা সজল, ৬৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহমুদুল হাসান পলিন ও স্থানীয় আ. লীগ নেতা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. জসিম মজুমদারসহ এলাকার বরেণ্য ব্যক্তিবর্গ।

পরবর্তীতে প্রশাসনসহ উপস্থিত সকলের আশ্বাসের ভিত্তিতে বিক্ষুব্ধরা ধীরে ধীরে শান্ত হন। তবে এলাকায় বিচ্ছিন্নভাবে তাদের ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকতে দেখা গেছে।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution