• রাত ১১:১৫ মিনিট শুক্রবার
  • ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ২০শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সাদিপুরে শ্রমিকলীগের পুর্ণমিলনী মোগরাপাড়া ইউপি নির্বাচনে ২ ইউপি সদস্যের মনোনয়নপত্র বাতিল জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে একই পরিবারের ৩জনকে পিটিয়ে জখম বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্ণামেন্ট ফাইনালে বৈদ্যেরবাজার ইউপি ১-০ গোলে জয়ী বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টে নোয়াগাঁওকে হারিয়ে বৈদ্যেরবাজার ফাইনালে সোনারগাঁও পৌরসভাকে হারিয়ে জামপুর ফাইনালে আলেমদের তালিকার প্রতিবাদে সোনারগাঁয়ে জামায়াতের বিক্ষোভ আলেমদের তালিকার প্রতিবাদে সোনারগাঁয়ে জামায়াতের বিক্ষোভ কাঁচপুরে মিরাজ নামের ১২ বছরের কিশোর নিখোঁজ বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুনামেন্টে জামপুর ইউনিয়ন ৩ – ২ গোলে জয়ী যেতে_যেতে_পথে দরগাবাড়ি_নহবতখানা মনোনয়ন জমা দিয়ে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে নৌকার পরিবার দাবি, নৌকা না পেলেই বিদ্রোহী, এড. সামসুল ইসলাম মোগরাপাড়া ইউপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন যারা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আহবায়ক কমিটি, যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন দায়িত্ব বুঝে নিলেন নতুন প্রশাসক নির্বাচনের ঘোষনা দিলেন আরিফ মাসুদ বাবু ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে জামায়াত সোনারগাঁয়ে অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত গ্রেপ্তার মেয়াদের ১৫ মাস পর সোনারগাঁও পৌরসভার প্রশাসক নিয়োগ
টয়োটার হাইড্রোজেন গাড়ি এখন ঢাকায়

টয়োটার হাইড্রোজেন গাড়ি এখন ঢাকায়

Logo


তিজারাহ মোটরস লিমিটেড গত মাসে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে হাইড্রোজেন চালিত গাড়ি টয়োটা মিরাই আমদানি করে

কয়েক সপ্তাহ আগে ঢাকা ট্রিবিউনে প্রকাশিত এক নিবন্ধে বলা হয়েছিল, হাইড্রোজেনচালিত গাড়িগুলোর ব্যবহার আবার শুরু হতে যাচ্ছে। যদিও বিশ্বব্যাপী বৈদ্যুতিক গাড়ির ব্যবহার ক্রমান্বয়ে বাড়ছে।

তিজারাহ মোটরস লিমিটেড গত মাসে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে হাইড্রোজেন চালিত গাড়ি টয়োটা মিরাই আমদানি করে।

নতুন সাজে টয়োটার দ্বিতীয় প্রজন্মের মিরাই হাইড্রোজেন এফসিইভি গাড়িতে ব্যবহার করা হয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি। তাছাড়া, পাঁচ আসনের এই গাড়িটি দামেও বেশ সাশ্রয়ী।

গাড়িটির ২০২১ সালের মডেল এখন আরও বড় এবং “লেক্সাস এলএস সেডানের” মতো একই আরডব্লিউডি প্ল্যাটফর্মে নির্মিত। এতে ব্যবহৃত প্রযুক্তি আকর্ষণীয় হওয়া সত্ত্বেও অনেকে মনে করেন, এতে পুনরায় জ্বালানি সরবরাহ করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ।

আগের সংস্করণের তুলনায় এর ড্রাইভিং রেঞ্জ বাড়ানো হয়েছে ৩০%। এতে সংযোজিত হয়েছে ১৮২ হর্স পাওয়ার এবং ৩০০ ফুট/পাউন্ড টর্ক।

এর উচ্চ কর্মক্ষমতার জ্বালানি সেলে এমন একটি ব্যাটারি যুক্ত করা হয়েছে যা শক্তি সঞ্চয় করতে সক্ষম।

গাড়ির বাইরের অংশটি আধুনিক এবং পরিশীলিত এবং এর আরডব্লিউডির অনুপাত বিশেষভাবে লক্ষ্যণীয়। গাড়িটির ডিজাইন টয়োটার ফ্ল্যাগশিপ ব্র্যান্ড লেক্সাসের মতো।

এর নির্মাণশৈলীতে মানের সঙ্গে কোনো আপস করা হবে না বলে নিশ্চিত করেছে টয়োটা। তুলনামূলক অধিকসংখ্যক বাটন এবং নবসমৃদ্ধ গাড়ির ভেতরের অংশটি ক্যামরির সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

গাড়িটির ভেতরের জায়গা বেশ বড় হলেও মাঝের কাউলটি (হুড এবং উইন্ডশিডের মাঝখানের প্যানেল) বড় হওয়ায় এবং একটি হাইড্রোজেন ট্যাঙ্ক অনেক জায়গা নেওয়ায় পিছনের তিন আসনের মাঝেরটি বেশ সংকুচিত হয়ে যায়।

গাড়িটিতে নেভিগেশনসহ একটি ১৩.২ ইঞ্চির টাচ স্ক্রিন এবং “জেবিএল” ব্র্যান্ডের অডিও সিস্টেম ব্যবহৃত হয়েছে।

অভ্যন্তরীণ বেইজসহ ধাতব নীল রঙের যে গাড়িটি আমদানি করা হয়েছিল তাতে ১৮৫ হর্সপাওয়ার ও ১৫৪ হাইড্রোজেন জ্বালানি সেল সংযোজিত হয়েছে, যা জ্বালানি বাঁচানোর ক্ষেত্রে অত্যন্ত কার্যকর।

৫ কিলো ট্যাঙ্কের ক্ষমতাসহ মিরাইয়ের ড্রাইভিং রেঞ্জ ৫০০ কিলোমিটারেরও বেশি। এক লিটার হাইড্রোজেনের মাধ্যমে ১০০-১২৫ কিলোমিটার চালানো সম্ভব। গাড়িটি কার্বন ডাই অক্সাইডও নির্গমন করবে না।

আগেই বলা হয়েছে, এই গাড়ির ক্ষেত্রে পুনরায় জ্বালানি সরবরাহ করাটা সামগ্রিকভাবে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। কারণ হাইড্রোজেন রিফুয়েলিং স্টেশন বিশ্বব্যাপী বেশ বিরল এবং বাংলাদেশেও তার বাইরে নয়।

যদিও একবার সম্পূর্ণরূপে জ্বালানি সরবরাহ করা হলে এটিকে দীর্ঘ পরিসরে চালানো সম্ভব, তবুও বিষয়টি নিয়ে ব্যবহারকারীদের চিন্তা করাটা একেবারে অমূলক নয়।

জাপানি শব্দ ‘‘মিরাই’’ এর শাব্দিক অর্থ ‘‘ভবিষ্যৎ’’। টয়োটার দাবি, অটোমোবাইল শিল্পের জন্য হাইড্রোজেন জ্বালানি কোষও ভবিষ্যতের স্বপ্নদ্রষ্টা।

যদিও অন্য ব্র্যান্ডগুলো এই পথ অনুসরণ করবে বলে মনে হয় না। এর পরিবর্তে প্রস্তুতকারকরা নিজেদের বৈদ্যুতিক গাড়িগুলোকে আরও কার্যকর করে তুলতে আগ্রহী।

তিজারাহ মটরস জানায়, তাদের আমদানি করা একমাত্র মিরাই ইতোমধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। গ্রাহকের চাহিদা থাকলে রাজধানীর তেজগাঁও-গুলশান লিংক সড়কে অবস্থিত শোরুমটি আরও মিরাই গাড়ি আমদানির ব্যবস্থা করতে পারে।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution