• সকাল ১০:৪০ মিনিট শুক্রবার
  • ৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২৩শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সাদিপুর ইউনিয়ন জাতীয়পার্টির নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা এড: সামসুল ইসলাম ভুইয়া ও ডা: আবু জাফর বিরু’র উপর তৃনমুল নেতাকর্মীদের ক্ষোভ সিদ্ধিরগঞ্জে ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় সোনারগাঁয়ের নাছির গ্রেফতার সোনারগাঁয়ে দেবী দুর্গার বােধন ও অধিবাসে দুর্গাপূজা শুরু সোনারগাঁয়ে ৯ জনের নমুনায় করোনা আক্রান্ত ৩ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির পরিচয় খুঁজছে পুলিশ সোনারগাঁয়ে দেয়াল চাপা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু ধর্ষণ: বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে ধর্ষিত ছেলেদের সুবিচার পাওয়ার সুযোগ কতটা আছে সোনারগাঁয়ে শুরুতেই জাতীয়পার্টির কাছে ধরাশয়ী আওয়ামীলীগ মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে আগামীকাল থেকে সোনারগাঁয়ে ৩৩টি মন্ডবে দুর্গাপূজা শুরু নোয়াগাঁও ওয়ার্ড উপ নির্বাচনে মোরগ মার্কা জয়ী মোগরাপাড়া চৌরাস্তার পাবলিক টয়লেট খুলে দেয়ার দাবি সু চির ৩ প্রার্থীকে অপহরণ টটেনহ্যামের বিপক্ষে ওয়েস্ট হ্যামের অবিশ্বাস্য কামব্যাক পেঁপের বিশেষ ৮ গুণ সোনারগাঁয়ে ৭ জনের নমুনায় কোন করোনা রোগী সনাক্ত হয়নি শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পেলেন সোনারগাঁয়ের ফিরোজ হোসাইন সোনারগাঁয়ের মেঘনা নদী থেকে ২০ হাজার মিটার জালজব্দ সোনারগাঁয়ে এবার ৩৩টি পূজামন্ডবে অনুষ্ঠিত হবে শারদীয় দুর্গাৎসব সোনারগাঁয়ে এখনো কমেনি আলুর দাম
ঠাণ্ডায় থার্মোমিটার ভেঙে যায় যে গ্রামে

ঠাণ্ডায় থার্মোমিটার ভেঙে যায় যে গ্রামে

Logo


আমাদের দেশে শীতকালে প্রতিবছর যে পরিমাণ ঠাণ্ডা পড়ে, এবার তার চেয়ে অনেক বেশি পড়েছে। উত্তরাঞ্চলে ৩ ডিগ্রির নিচে রেকর্ড পরিমান ঠাণ্ডা ছিল গত সপ্তাহে। কিন্তু বিশ্বের এমন কিছু জায়গা আছে, যেখানকার ঠাণ্ডার তুলনায় এ ঠাণ্ডা একেবারেই কিছু না।

রাশিয়ার এমনই একটি গ্রামের নাম ওইমিয়াকন। এটি বিশ্বের শীতলতম গ্রাম। এখানে এত আবহাওয়া এত ঠাণ্ডা হয় যে পারদ নামতে নামতে থার্মোমিটার পর্যন্ত ভেঙে যায়।

মঙ্গলবার ইয়াকুশা অঞ্চলের ওই গ্রামে তাপমাত্রা নেমেছিল মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। উত্তর-পূর্ব রাশিয়ায় সাইবেরিয়া অঞ্চলে গ্রামটির অবস্থাণ।

ইয়াকুশা মস্কো থেকে ৩ হাজার ৩শ’ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত। সেখানে মাইনাস ৪০ ডিগ্রিতেও স্কুল খোলা থাকে। রোববার সেখানে প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় জমে মারা গেছেন দুইজন। গাড়ি নষ্ট হওয়ায় রাস্তায় বের হওয়ার পর তারা ঠাণ্ডায় জমে যান।

ইয়াকুশার গ্রাম ওইমিয়াকনে মঙ্গলবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মানুষের বসতি আছে এমন স্থানের মধ্যে শীতলতম ওইমিয়াকন।

মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ডিজিটাল থার্মোমিটার ধারণ করতে পারে না, অর্থাৎ ভেঙে যায়। কেননা, এই থার্মোমিটারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা দেয়া আছে মাইনাস ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এরকম প্রচণ্ড ঠাণ্ডা পড়লে স্থানীয়রা আশ্রয়শিবিরে চলে যান। স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। রাস্তায় হঠাৎ দু’ একজনকে চোখে পড়ে, তারা হয়তো সেলফি তোলার জন্য বের হন, অর্থাৎ চোখের পাতা জমে কেমন হয় সেটার ছবি তোলেন।

প্রত্যন্ত এই গ্রামটি সবসময়ই বরফে ঢাকা থাকে। কিন্তু শীতকালে ভয়াবহ ঠাণ্ডা পড়ে সেখানে। এই গ্রামে থাকেন প্রায় ৫০০ জন মানুষ। গ্রীষ্মের সময়ে আগে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকত ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি, ২০১০ সালে সেই তাপমাত্রা পৌঁছেছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

এখানকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ডটটি ছিল ১৯৩৩ সালে, মাইনাস ৬৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মানুষের বসতি আছে এমন স্থানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড এটি। নাসা থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড অ্যান্টার্কটিকায়, মাইনাস ৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution