• রাত ৮:৪৫ মিনিট সোমবার
  • ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
জাপা সভাপতি ও চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ’কে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ উপজেলার জাতীয়পার্টির সভাপতি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ আটক সোনারগাঁয়ে আরো ১৫ জনের দেহে করোনা সনাক্ত ৫ম বারেও করোনা পজেটিভ, সোনারগাঁবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন মান্নান মামুনুল ইস্যুতে আটক কাউন্সিলর তপন ২ দিনের রিমান্ডে ফেলা যাওয়া টাকা ও টুপির মালিককে খুঁজছে ফার্মেসী মালিক সোনারগাঁয়ে ভেজাল খাদ্য তৈরির দায়ে গ্রেফতার ১ রোজা রেখে চুল ও নখ কাটা যাবে? না.গঞ্জের সেই সিংহামের হাতে বন্দি হলেন মামুনুল রোযাও কমছেনা তরমুজ ও আনারসের দাম সোনারগাঁও পৌরসভার কাউন্সিলর তপন গ্রেফতার লক ডাউন বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ সোনারগাঁয়ে করোনা আক্রান্ত ১৪, মৃত্যু ১ সুস্থ ৪০ সোনারগাঁয়ে করোনা আক্রান্ত ১৪, মৃত্যু ১ সুস্থ ৪০ চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহাগ রনি’র উদ্যোগে মাস্ক ও ইফতারি বিতরন রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযুদ্ধা ওবায়দুল হকের দাফন সোনারগাঁয়ে একদিনে করোনায় মৃত্যু ৩, আক্রান্ত ১১ সনমান্দিতে দুই ডাকাত আটক বন্দরে চোরাই গার্মেন্ট পণ্য উদ্ধার, গ্রেপ্তার-২ আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে ইঞ্জিনিয়ার মাসুমের আর্থিক সহায়তা প্রদান
হারিয়ে যাচ্ছে দেশীয় মাছ… খায়রুল আলম খোকন

হারিয়ে যাচ্ছে দেশীয় মাছ… খায়রুল আলম খোকন

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:
একটা সময় দেশি বিভিন্ন প্রজাতির মাছে গ্রাম-গঞ্জের হাটবাজারে সয়লাব হয়ে যেত। এখন আর সেসব মাছ চোখে পড়ে না। জেলেদের জালেও এখন সেই ধরনের মাছ ধরা পড়ে না। দেশীয় এসব মাছের মধ্যে রয়েছে বাইম, খলিসা, ফলি, চিংড়ি, শিং, পাবদা, টেংরা, মালান্দা, চেলা, শোল, চোপরা, শৌল, বোয়াল, আইড়, ভ্যাদা, কৈ, মাগুরপুঁটি, ডারকা, মলা, ঢেলা, বুড়াল, খরকাটি, গজার, শবেদা, চেং, টাকি, চিতল, গতা, পোয়া, বালিয়া, উপর চকুয়া, কাকিলা, গুত্তুম, বৌরানীসহ প্রায় ৫০টিরও বেশি মিঠা পানির বিভিন্ন ধরনের মাছ। এসব মাছ হারিয়ে যাওয়ার পেছনে অন্তত অনেকগুলো কারণ চিহ্নিত করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

গ্রাম বাংলায় পৌষ-মাঘ মাসে পুকুর, খাল, ডোবা, ঘেরের পানি কমতে থাকলে দেশি মাছ ধরার ধুম পড়ে যেত। এখন সে সব দেখা যায় না। বর্ষাকালে ধানের জমিতে কইয়া জাল, বড়শি ও চাই পেতে মাছ ধরার রীতিও হারিয়ে গেছে অনেক এলাকা থেকে। যারা একসময় পুকুর, খাল-বিল, ডোবা-নালায় মাছ ধরে পরিবারের চাহিদা পূরণ করতেন, তাদের অনেকেই এখন বাজার থেকে চাষের মাছ কিনে খেতে বাধ্য হচ্ছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশীয় মাছ ক্রমশ হারিয়ে যাওয়ার জন্য মূলত অনেক কারণই দায়ী। এরমধ্যে মধ্যে জলবায়ুর প্রভাব, প্রাকৃতিক বিপর্যয়, কারেন্ট জালের অবৈধ ব্যবহার, ফসলি জমিতে অপরিকল্পিত কীটনাশক ব্যবহার, জলাশয় দূষণ, নদ-নদীর নাব্যতা হ্রাস, উজানে বাঁধ নির্মাণ, নদী সংশ্লিষ্ট খাল-বিলের গভীরতা কমে যাওয়া, ডোবা ও জলাশয় ভরাট করা, মা মাছের আবাস স্থলের অভাব, ডিম ছাড়ার আগেই মা মাছ ধরে ফেলা, ডোবা-নালা-পুকুর ছেঁকে মাছ ধরা, বিদেশি রাক্ষুসে মাছের চাষ ও মাছের প্রজননে ব্যাঘাত ঘটানো। সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, এ কারণেই ৫০টির বেশি দেশি প্রজাতির মাছ হারিয়ে যেতে বসেছে।

হারিয়ে যাওয়া দেশি প্রজাতির মাছের সংখ্যা আড়াইশ’র বেশি। হাটবাজার, পুকুর, খাল, বিল কোথায়ও এখন আর মিঠা পানির সুস্বাদু সেসব মাছ মিলছে না। দেশি মাছের বদলে এখন বাজারে জায়গা দখল করে নিয়েছে চাষের পাঙ্গাস, তেলাপিয়া, ক্রস ও কার্প জাতীয় মাছ।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কৃষি ও চাষাবাদ ব্যবস্থার পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাছ। একই সঙ্গে পোনা আহরণ, নেটজাল ও মশারি জাল ব্যবহার করে খালে-বিলে-সাগরে মাছ ধরার কারণেও দেশীয় প্রজাতির মাছ বিলুপ্ত হচ্ছে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন সংশ্লিষ্টরা। মৎস্য অধিদফতর সূত্র জানায়, দুই দশক আগে দেশের উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে প্রায় আড়াইশ’ প্রজাতির মিঠা পানির মাছ পাওয়া যেত।

হারিয়ে যাওয়া দেশি মাছ রক্ষায় ব্যাপক গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে। এখন পাবদা, টেংরা, বোয়াল, আইড়, পাঙ্গাস ও কৈ মাছের চাষ হচ্ছে।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution