• বিকাল ৩:০৬ মিনিট শুক্রবার
  • ২২শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ৫ই জুন, ২০২০ ইং
এই মাত্র পাওয়া খবর :
বীর মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনকে রাষ্টীয় মর্যাদায় শেষ বিদায় জানালেন ইউএনও সাইদুল ইসলাম বৈরী আবহাওয়ায়ও লক ডাউন পরিবারে পৌছে যাচ্ছে এমপি খোকার খাবার সোনারগাঁয়ে ২দিনে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা গড়ে সাড়ে ৩৮% সোনারগাঁয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহত সোনারগাঁয়ে একদিনে সর্বোচ্চ ৬৩ জনের মধ্যে ২৮ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৫ জনের মৃত্যু, মৃত্যুর কারণ গোপন করছে পরিবার মৃত ব্যক্তির দেহে কতক্ষণ সক্রিয় থাকে করোনা ভাইরাস প্রধানমন্ত্রীর উপহার অসহায়দের পৌছে দিলেন চেয়ারম্যান ইঞ্জি: মাসুম সোনারগাঁয়ে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুলক নয়তো জরিমানা সোনারগাঁয়ে ৭৫ জনের মধ্যে ২৫ জনের দেহে করোনা সনাক্ত, মোট সনাক্ত ২৩৮ জান্নাতি ও জাহান্নামিদের মাঝে কথোপকথন!.. তুহিন মাহমুদ করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তিদের দাফনের ব্যবস্থা করলেন এমপি খোকার টিম বারদীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে ২ ব্যক্তির মৃত্যু লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ১৩০ তিরোধান উৎসব স্থগিত সোনারগাঁয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে মেয়ের পর মায়ের মৃত্যু প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে সোনারগাঁয়ে সোনারগাঁয়ে জিয়াউর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও ত্রাণ বিতরণ সোনারগাঁয়ে এ পর্যন্ত করোনায় ১০ জনের মৃত্যু, লাশ দাফনে এমপি খোকার টিম স্বাস্থ্যবিধি মেনে সোনারগাঁয়ে চলছে গণপরিবহন কাঁচপুর যুবলীগের সভাপতির পিতার মৃত্যুতে উপজেলা যুবলীগের শোক
ঈদের নামাজ শেষে পশু কোরবানিতে ব্যস্ত সোনারগাঁবাসী

ঈদের নামাজ শেষে পশু কোরবানিতে ব্যস্ত সোনারগাঁবাসী

Logo

নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকমঃ সাত বছরের ছোট্ট শিশু মিম সাত সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর থেকেই কোরবানির জন্য কেনা পশুর জবাই করা দেখবে বলে অপেক্ষা করছিল। যখনই গরুটিকে জবাই করার জন্য শোয়ানো হলো তখনই কান্না জুড়ে দেয় সে। তার বাবাসহ উপস্থিত সবাই তাকে সান্তনা দেয়।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে মিমের বাবা জানান, হাট থেকে আনার পর থেকে ঘুমের সময়টুকু ছাড়া বাকি সময়টা গরুকে ঘাস খাওয়ানো, খৈল ও ভুষি খাওয়ানো, গরুর রশি ঠিক আছে কিনা, ঘুমাচ্ছে না জেগে আছে এ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় গরুটির প্রতি মায়া জন্মে গেছে তার। তাই কান্না জুড়ে দিয়েছে।

এমন দৃশ্য নগরীর সর্বত্র। আজ পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ শেষে পশু জবাইয়ে নগরবাসী ব্যস্ত হয়ে পড়েন। গরু-ছাগল জবাইয়ের সময় ছোট্ট শিশু মিমের মতো শিশুদের অনেকে কষ্টে কান্না জুড়ে দেয়। দুদিনের জন্য শিশুদের একেকজন ক্ষুদে রাখাল হয়ে গিয়েছিল।

সরেজমিন দেখা গেছে, সকাল সাড়ে ৭টার পর থেকেই বিভিন্ন পাড়া মহল্লা গরু-ছাগল জবাই শুরু হয়। বিভিন্ন মসজিদ ও মাদরাসার শিক্ষক ও ছাত্ররা ধারালো অস্ত্র হাতে ঘুরে ঘুরে আল্লাহ আকবর ধ্বনি উচ্চারণ করে জবাইয়ের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। কেউ কেউ আবার নিজের হাতে পশু জবাই করে। জবাই করার সঙ্গে সঙ্গে পানির পাইপ দিয়ে রক্ত ধুয়ে দিতে দেখা যায়। এ সময় মাদরাসার ছাত্রদেরও কোরবানির পশুর দান করা চামড়া সংগ্রহে ব্যস্ত থাকতে দেখা যায়।

Logo
এই নিউজটি শেয়ার করুন...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution