• রাত ৩:১১ মিনিট বুধবার
  • ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেলপথে বাড়তে যাচ্ছে ট্রেনের সংখ্যা আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টি হবে নিয়ামক শক্তি, লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি বারদি জাতীয়পার্টির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত ১১৯ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা আজ কি চমক দেখাবে পারবে ব্রাজিল? মাদক মামলায় ফেঁসে যাচ্ছে না.গঞ্জের ৪ পুলিশ সদস্য ইউনিয়ন শ্রমিক দলের সেক্রেটারী সহ বিএনপি ৪ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার দলিল লিখক মোশারফ এর হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন সোনারগাঁয়ে এক সঙ্গে তিন পুত্র সন্তানের জম্ম প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান মানোন্নয়নের লক্ষ্যে সোনারগাঁয়ে শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভা নদী খনন করে নৌ-জেটি নির্মাণ ও আনন্দবাজারের নিম্ন অংশ ভরাটে চেয়ারম্যানের অভিনন্দন সোনারগাঁয়ে চেয়ারম্যানের পুত্রসহ দুইজন ইয়াবাসহ গ্রেফতার কাঁচপুর থেকে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধ নিখোঁজ সোনারগাঁয়ে বিশেষ অভিযানে আরো ৪ জন গ্রেপ্তার সাংবাদিক পরিমল বিশ্বাস এর মায়ের পরলোক গমন নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারে থানা বিএনপির নিন্দা সোনারগাঁয়ে ৬ বিএনপির নেতাকর্মী গ্রেপ্তার বিজয় দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তুতি সভা বন্দরে মাছ ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা ॥ আটক-২ নেতাকর্মীদের বাড়িতে পুলিশী তল্লাসীর নিন্দা স্বপনের
সোনারগাঁয়ের ফলজ গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে অবৈধ মাছের ঝোপে, প্রশাসন বললেন কিছু করার নাই

সোনারগাঁয়ের ফলজ গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে অবৈধ মাছের ঝোপে, প্রশাসন বললেন কিছু করার নাই

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:  সোনারগাঁ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা আম, জাম ও পেয়ারাসহ অন্যান্য ফলজ ও বনজ গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে নদীতে মাছ শিকারের ফাঁদ অবৈধ মাছের ঝোপে। ফলে এদিকে যেমন বিনীত হয়ে যাচ্ছে ফলজ ও বনজ গাছ অপরদিকে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পবিবেশের ভারসাম্য আর অবৈধ ঝোপের কারনে মাছ শুন্য হচ্ছে নদীগুলো। এতো ক্ষতির পরও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বলেছেন তাদের কিছুই করার নেই।

বর্ষাকালের শেষের দিক হাওর, জলাশয়, খাল বিলের পানি নেমে যাওয়ার সময় কিছু অবৈধ মুনাফা লোভী লোক মেঘনা, ব্রক্ষ্মপুত্র ও ধলেম্বরী নদী ও বড় বড় খালের স্রোত নামার স্থানগুলোতে যেখানে মাছেরা বি¯্রামের জন্য বেছে নিয়ে সে সব জায়গাগুলোতে নিদিষ্ট জায়গা দখল করে গাছের ঢালপালা ও কচুরীপানা দিয়ে একটি ঘের তৈরী করে। সেখানে বিভিন্ন ধরনের খাবার দিয়ে নদীতে থাকা মাছগুলোতে সেই ঘেরের মধ্যে নেয় এবং একটি নিদিষ্ট সময় পর্যন্ত সেখানে তারা মাছ আটকানোর বিভিন্ন ফন্দি আটে। এ ফন্দির জন্য আম, জাম ও পেয়ারাসহ আরো বিভিন্ন পদের গাছের ঢাল ব্যবহার করা হয়। বর্ষার শেষ সময় আগষ্ট মাস আসলে এসব অবৈধ মাছ ঝোপ ব্যবসায়ীরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ফলজ ও বনজগাছগুলো গাছ মালিকদের কাছ থেকে কিনে নিয়ে নৌকা ও ট্রলার বোঝাই করে গজারিয়া, আড়াইহাজার, মেঘনাসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নিয়ে মাছের ঝোপ তৈরী করে। গাছের মালিকরাও বেশী মুনাফা লাভের আশায় তাদের ফলজ ও বনজগাছগুলো ঝোপ ব্যবসায়ীদের কাছ বিক্রি করে দেয় । এতে করে উপজেলার পৌরসভাসহ বিভিন্ন এলাকায় ফলজ ও বনজ গাছ শুন্য হয়ে পড়েছে। অপরদিকে বিনীত হয়ে যাচ্ছে ফলজ ও বনজ গাছ ও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পবিবেশের ভারসাম্য আর অবৈধ ঝোপের কারনে মাছ শুন্য হচ্ছে নদীগুলো। উপজেলা প্রশাসনের চোখের সামনে প্রতিদিন গড়ে ৫/৬টি নৌকা বোঝাই করে গাছের ঢালপালা নৌকায় করে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাওয়ার পর তারা কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো। তারা বলেন, ফলজগাছ গুলো যেভাবে কেটে নিয়ে গিয়ে নদীতে অবৈধ ঝোপ তৈরী করছে এতে আমরা কিছুদিন পর দেশীয় ফলফলাদির অভাবে পরবো অপরদিকে, গাছ কেটে ফেলার কারনে বিরুপ প্রভাব পড়বে পরিবেশের উপর। এছাড়া নদীগুলো অবৈধ ঝোপগুলোর কারনে নৌযান চলাচলে যেমন অসুবিধে হচ্ছে তেমনি মাছ শুন্য হয়ে পড়ছে নদী ও খালবিলগুলো।

এ ব্যাপারে উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার জানান, যারা নদীতে ঝোপ তৈরী করে তারা এতো ক্ষমতাধর যে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষমতা আমাদের নেই। এছাড়া মানুষ যদি তাদের গাছ বিক্রি করে দেয় এতে আমাদের কি করার আছে।

এ ব্যাপারে কৃষি কর্মকর্তা মনিরা আক্তার জানান, এটি আমাদের দেখার বিষয় না। উপজেলা প্রশাসন যদি আমাদের দায়িত্ব দেন তাহলে আমরা বিষয়টি ভেবে দেখবো।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution