• রাত ১০:২০ মিনিট শনিবার
  • ১২ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : শীতকাল
  • ২৫শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁয়ে উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন সোনারগাঁয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বার্ষিক সদস্য সভা হই হই করে হচ্ছে না সোনারগাঁ আওয়ামীলীগের সম্মেলন সোনারগাঁয়ের লোকজ উৎসবে দর্শনার্থীদের ঢল গুচ্ছগ্রাম বাসীর ভিটেমাটি রক্ষার আশ্বাস এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার সোনারগাঁয়ের পলাশকে দায়ী করে বিমান ছিনতাই মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন অগ্নিদগ্ধ জমজ সন্তানের মাকে আর্থিক সহায়তা প্রদান মেঘনা সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গান গেয়ে মাতিয়ে গেলেন আরেফিন রুমী উন্নয়নের জন্য মাসুম আবারো পিরোজপুরের চেয়ারম্যান হবেন.. এমপি খোকা মেঘনা শিল্পনগরী স্কুলে এমপি খোকাকে সংবর্ধনা সোনারগাঁয়ের চৌধুরীগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে চুরি, মূল্যবান মালামাল লুট রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় একই দিনে মুক্তিযোদ্ধা দুই নূর মুহাম্মদ-এর চিরবিদায় হিন্দু থেকে মুসলমান হওয়া নূর মোহাম্মদের দায়িত্ব নিবেন এডভোকেট ফিরোজ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে পিতা-পুত্রের ব্যাপক প্রচারণা সোনারগাঁয়ে স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীর বাল্যবিবাহ বন্ধ করল প্রশাসন মেঘনার সংবর্ধনা অনুষ্ঠান মাতাতে আসছেন কণ্ঠশিল্পী আরেফিন রুমি, রাজিব ও বৃষ্টি বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা উদ্বোধন লাঙ্গলবন্দে বেদে পল্লীতে বাসমাহ’র স্কুল উদ্বোধন এবং শীতবস্ত্র বিতরণ নুনেরটেকে বিদ্যুতের হাতছানি সোনারগাঁয়ের বারদীতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু
সোনারগাঁয়ের ১৪ সমাজ সেবা কেন্দ্রর সবকটি বেদখল, বানানো হয়েছে গোয়ালঘর ও কার্যালয়

সোনারগাঁয়ের ১৪ সমাজ সেবা কেন্দ্রর সবকটি বেদখল, বানানো হয়েছে গোয়ালঘর ও কার্যালয়

নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকমঃ নিয়মিত কার্যক্রম না থাকায় সোনারগাঁ উপজেলার সমাজ সেবা অফিসের অধিভূক্ত ১৪টি সমাজ সেবা কেন্দ্রের বেশিরভাগই এখন বেদখল হয়ে গেছে। যেগুলো টিকে আছে সেগুলোও জরাজীর্ণ পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।
সোনারগাঁ উপজেলা সমাজ সেবা অফিসের তথ্য অনুযায়ী সোনারগাঁয়ের একটি পৌরসভা ও ১০টি ইউনিয়নে মোট ১৪টি সমাজ সেবা কেন্দ্র (গণ মিলনায়তন) রয়েছে। ১৯৮৫ সালে এ কেন্দ্রগুলো প্রতিষ্ঠিত হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের দানকৃত সম্পত্তিতে সেবা কেন্দ্রগুলো তৈরি করা হয়েছিল। এখানে সমাজের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের পাশাপাশি মহিলাদের জন্য সেলাই প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হতো। কিন্তু বহুদিন যাবত এসব কার্যক্রম বন্ধ থাকার কারণে সোনারগাঁয়ের সবগুলো কেন্দ্রই এখন পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।
সরেজমিন সমাজ সেবা কেন্দ্রগুলোতে গিয়ে দেখা গেছে সোনারগাঁও পৌরসভার আমিনপুরে ৩ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটির অবস্থা বেশ জরাজীর্ণ। বর্তমানে এখানে কোন কার্যক্রম না থাকায় এটি পরিত্যক্ত অবস্থায় আছে। ১০শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত পৌরসভার গোয়ালদী গ্রামের সেবা কেন্দ্রটি স্থানীয়রা সংস্কার করে একাংশে নামাজের স্থান তৈরি করেছেন অপরাংশে স্থানীয় যুবকরা খেলার সরঞ্জাম রাখেন। এছাড়া কেন্দ্রটির সামনের ১ শতাংশ জায়গা দখল করে ওয়াসা একটি গভীর নলকুপ স্থাপন করেছেন।
অপরদিকে পিরোজপুর ইউনিয়নের মঙ্গলেরগাঁও গ্রামে ৫ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটি পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে এখানে স্থানীয় মঙ্গলেরগাঁও বাজারের ময়লা আবর্জনা ফেলা হচ্ছে। একই ইউনিয়নের ভবনাথপুর গ্রামে ৬ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটি আংশিক সংস্কার করে স্থানীয় মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জিনের থাকার বাসস্থান তৈরি করা হয়েছে। উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের চৌধুরীগাঁও গ্রামে ৬ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত পরিত্যক্ত সেবা কেন্দ্রটি দখল করে স্থানীয় লোকজন বসবাস করছেন একই ইউনিয়নের হোসেনপুর সেবা কেন্দ্রটি ইতিমধ্যে ধ্বংস হয়ে গেছে ফলে জমিটি এখন চলে গেছে স্থানীয়দের দখলে। নোয়াগাঁও ইউনিয়নের লাধুরচর গ্রামে ১৭ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটি দখল করে গরুর খামার করেছেন স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার আনোয়ার হোসেনের ভাই ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতালেব মিয়া। জামপুর ইউনিয়নের বুরুমদী গ্রামে ১৫ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটি ভগ্ন অবস্থায় পরিত্যক্ত রয়েছে। একই ইউনিয়নের বাগবাড়িয়া এলাকায় ৬ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটি ধ্বংস হয়ে যাওয়ায় নুরুল ইসলাম নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি জমিটি দখলে নিয়ে বাড়ি ঘর নির্মাণ করে ফেলেছে। বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের সাতভাইয়াপাড়ায় ১৭ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত পরিত্যক্ত সেবা কেন্দ্রটি সংস্কার করে উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ঊর্মি আক্তার তার নিজস্ব কার্যালয় তৈরি করেছেন। উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের নানাখী গ্রামে ১০শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সেবা কেন্দ্রটি পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। কাঁচপুর ইউনিয়নের কুতুবপুরে সেবা কেন্দ্রের ৮শতাংশ জমি বেদখল হয়ে গেছে। এছাড়া বারদী ইউনিয়নের সেবা কেন্দ্রের ৬ শতাংশ ও মোগরাপাড়া ইউনিয়নের আলাবদী গ্রামে সেবা কেন্দ্রের ১০ শতাংশ জমিও বেদখল হয়ে গেছে।

বেদখল হওয়া সেবা কেন্দ্রগুলোর বর্তমান দখলদারদের সাথে কথা বললে তারা জানান, দীর্ঘদিন যাবত এগুলো পরিত্যক্ত অবস্থায় পরে আছে তাই আমরা এগুলোকে একটু সংস্কার করে ব্যবহার করছি। সরকারের যখন প্রয়োজন হবে তখন সরকার আবার এগুলো নিয়ে যাবে আমাদের কোন আপত্তি নাই।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা সাবিকা সুলতানা বলেন, দীর্ঘদিন যাবত এ সেবা কেন্দ্রগুলোতে কোন কার্যক্রম না থাকায় এগুলো বর্তমানে পরিত্যক্ত রয়েছে। ১৪টি কেন্দ্রের মধ্যে কুতুবপুর, বারদী, ভবনাথপুর, আলাবদী, গোয়ালদী ও নানাখী এ ৬টি সমাজ সেবা কেন্দ্রের দলিল আমাদের হাতে নেই। এগুলোর দলিল উদ্ধার ও বেদখল হয়ে যাওয়া জমি উদ্ধার করার জন্য প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। ইতিমধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত ভাবে সেবা কেন্দ্রগুলোর বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে।

এই নিউজটি শেয়ার করুন...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution