• রাত ১১:০৭ মিনিট সোমবার
  • ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২৩শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
আমি বিএনপি করি স্যার জানে ফোনালাপে অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া আমি নারী তাই মেয়র নির্বাচিত হলে নারী উন্নয়নর কাজ করবো.. ঝরা বির্তক পিছু ছাড়ছে না নাম ফলকের তড়িঘড়ি করে লাগানো হলো সোনারগাঁও জি আর ইনিষ্টিটিউশনের নাম ফলক এ বছর হচ্ছে না সোনারগাঁও পৌরসভা নির্বাচন শ্রমিকলীগ সভাপতি মন্টুর আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া সোনারগাঁয়ে গোরস্থানের জমি দখলের পায়তারার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সোনারগাঁয়ে দুটি দোকানে আগুন, ৪০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই জমি লিখে না দেয়ায় আলাউদ্দিন বাহিনীর তান্ডব, বাড়িঘর ভাংচুর আহত ৬ পৌর মেয়র পদপ্রার্থী ছগীর আহম্মেদ করোনায় আক্রান্ত প্রতিবাদ মূখর সোনারগাঁয়ের রাজনীতি সোনারগাঁয়ে আরো ১ জনের দেহে করোনা সনাক্ত, মোট সনাক্ত ৬৭৬ সোনারগাঁয়ে ছাত্রদলের দোয়া মাহফিল সোনারগাঁয়ে আরো ৩ জনের দেহে করোনা সনাক্ত গুডামী করবেন না, আমরা সোনারগাঁয়ের রাজনৈতিক গুডা…কালাম নামফলক ভাংচুর: প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ এমপি খোকাকে প্রতিহতের ঘোষনা সাবেক এমপি কায়সারের এমপি খোকাকে উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনের হুসিয়ারী (ভিডিওসহ) সোনারগাঁয়ে আরো ২ জনের দেহে করোনা সনাক্ত বেতন নেয়া যাবে না, প্রয়োজন হলে আমি ভুর্তকি দিবো. এমপি খোকা
খন্দকার আবু জাফরের মন্তব্যের কঠোর জবাব দিলেন রিয়াজ উদ্দিন

খন্দকার আবু জাফরের মন্তব্যের কঠোর জবাব দিলেন রিয়াজ উদ্দিন

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:

নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি মন্তব্যের কারনে ব্যাপক সমালোচনায় পড়েছে উপজেলা বিএনপি। এর মধ্যে সভাপতি খন্দকার আবু জাফর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদ দুটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। সেই সঙ্গে সাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির সেক্রেটারি পদ থেকে আমির হোসেনকে সরিয়ে সেলিম সরকারকে স্থলাভিষিক্ত করার প্রতিবাদও জানান জাফর। দাবি করেন- আমির হোসেনই সেক্রেটারি। সেলিম সরকার সেক্রেটারি নয়। কেউ যদি এটা করে থাকে তাহলে সেটা বৈধ নয়। রিয়াজ উদ্দীনও ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নয় এবং কাজী নজরুল ইসলাম টিটুও সাংগঠনিক সম্পাদক নয়। জাফর এখনও সভাপতি ও শাহআলম মুকুল সাংগঠনিক সম্পাদক পদে বহাল রয়েছেন বলেও দাবি করেছেন। তবে এ বিষয়ে খন্দকার আবু জাফরকে কঠোর জবাব দিয়েছে রিয়াজ উদ্দীন।

এদিকে মিডিয়াতে রিয়াজ উদ্দীন দাবি করেছেন- মিথ্যাচার করেছেন খন্দকার আবু জাফর। তার অভিযোগ জাফর গোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছেন। শনিবার দুপুর নিউজ সোনারগাঁ টুয়েন্টিফোর ডটকমের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দাবি করা রিয়াজ উদ্দীন।

রিয়াজউদ্দিন বলেন, ২০১৪ সালে খন্দকার খন্দকার আবু জাফরকে সভাপতি ও আজহারুল ইসলাম মান্নানকে সাধারণ সম্পাদক করে সোনারাগাঁ উপজেলা বিএনপির কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেই সময় মোস্তাফিজুর রহমান মামুনকে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পরবর্তী সহ-সভাপতি পদে আমাকে পদায়ন করা হয়। কমিটি ঘোষণা করার কিছুদিন পর মোস্তাফিজুর রহমান মামুন হৃদরোগে আক্রান্ত প্যারালাইজড রোগে হয়ে দল থেকে লিখিতভাবে অব্যাহতি নেন। তার অব্যাহতির পর থেকে আমি দলের ১নং সিনিয়ন সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি।

এছাড়াও তিনি বলেন, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী নজরুল ইসলাম টিটু দলের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তাছাড়া খন্দকার আবু জাফর গত তিন বছর যাবত দলের কোন কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করেন না। তার অবর্তমানে দলের সকল দায়িত্ব আমাকে পালন করতে হয়। তিনি ব্যবসার কাজে সবসময় দেশের বাহিরে অবস্থান করেন। দলের দুঃসময়ে সভাপতির অবর্তমানে আমাকেই দায়িত্ব পালন করতে হয়। গত কয়েক বছর আগে জাতীয় মে দিবস উপলক্ষে কাঁচপুর বালুর মাঠে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যখন জনসভা করেছিলেন। সেই জনসভার আগে যতগুলি প্রস্তুতিমুলক সভা হয়েছে তার প্রত্যেকটিতে আমি সভাপতিত্ব করেছিলাম।

এছাড়া রোযার সময় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মেঘনা শিল্পাঞ্চলে এসেছিলেন সেই সময় আমিই ওই অনুষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে সভাপতিত্ব করেছি। তখন তো জাফর সাহেব কোন প্রতিবাদ করেননি। এখন তিনি পবিত্র হজ্জ পালনে সৌদি আরব রয়েছেন সেই হিসেবে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমি দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি। তাই দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে সাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে আমির হোসেনকে অব্যাহতি দিয়ে হাজী সেলিম সরকারকে সাধারণ সম্পাদক পদে পদায়ন করেছি। এটা বৈধ এবং গঠনতন্ত্র অনুযায়ী।

অন্যদিকে সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মামুন নিউজ সোনারগাঁও টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, কয়েক বছর পূর্বেই আমি অসুস্থ্য হওয়ার পর দল থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিয়েছি।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution