• সন্ধ্যা ৭:৪৪ মিনিট বুধবার
  • ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতার মৃত্যুতে যুবদল নেতা আশরাফ ভুইয়ার শোক সোনারগাঁও পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে ! বিএনপি নেতা আবু সিদ্দিকের মৃত্যুতে মান্নানের শোক থানা বিএনপি’র স্বেচ্ছাসেবক নেতা আবু সিদ্দিক মোল্লার ইন্তেকাল যুবদলের প্রতিষ্টা বার্ষিকীতে খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া সোনারগাঁয়ে ১১ জনের নমুনায় ৪ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে মহাসড়কে দূর্ঘটনায় মহিলা নিহত সোনারগাঁয়ের মেঘনা নদী থেকে ৩ হাজার মিটার জাল জব্দ মেয়র প্রার্থী ডালিয়া লিয়াকত এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সোনারগাঁয়ে সোয়াইব হত্যার মামলার রায় ৯ নভেম্বর প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিল চেয়ে সরকারকে লিগ্যাল নোটিশ মেয়র নির্বাচিত হলে মসজিদের পাশাপাশি মন্দির উন্নয়নে কাজ করবো.. নাসরিন ঝরা সোনারগাঁয়ে নতুন করে ২ জনের দেহে করোনা সনাক্ত মেয়র প্রার্থী ছগীর আহম্মেদের পূজা মন্ডব পরিদর্শন ও আর্থিক সহায়তা প্রদান জাতীয়পার্টির নেতাকে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার সোনারগাঁয়ে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট এর উদ্যোগে বস্ত্র বিতরণ সাদিপুরে বিভিন্ন পূজা মন্ডপে চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ মোল্লার অনুদান ডালিয়া লিয়াকতের পূজা মন্ডব পরিদর্শন ও আর্থিক সহায়তা প্রদান সোনারগাঁয়ে ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে ইউএনও’র উপর হামলা সোনারগাঁয়ের হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে পুলিশের উপহার
দাবি আদায়ে একজোট সোনারগাঁয়ের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

দাবি আদায়ে একজোট সোনারগাঁয়ের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:

দাবি আদায়ের জন্য মাঠ ছাড়াছেন না সোনারগাঁয়ে নৌকার প্রতিকের মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতারা। তাদের জাড়ালো দাবি আদায়ে টানা গণসংযোগসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। সোনারগাঁ থেকে লাঙ্গল নয় নৌকা চাই। সেই দাবীর প্রেক্ষিতে রোদ, মেঘ ও বৃষ্টি অতিক্রম করে তারা নৌকার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। জেলা নেতারা তাদের সাথে সুর মিলিয়ে নৌকার প্রতিকের জন্য জোড় লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন।

সুত্র জানায়, গত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি জোট সরকারের ধানের শীষের প্রার্থী সাবেক প্রতিমন্ত্রী রেজাউল করিমকে ৮২ হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেছিলেন নৌকার প্রার্থী আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। গত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সোনারগাঁ থেকে কায়সারকে মনোনয়ন বঞ্চিত করে মনোনয়ন দেওয়া হয় কায়সার হাসনাতের চাচা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনকে। অপরদিকে জাতীয়পার্টি থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় বর্তমান সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকাকে। সেই নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্ত অনুয়ায়ী মোশারফ হোসেন মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। ফলে বিনা ভোটে সংসদ নির্বাচিত হন লিয়াকত হোসেন খোকা। সেই নির্বাচনে পর থেকে নেতা ও নেতৃত্বশুন্য হীন হয়ে পড়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ। তখন একমাত্র মাহফুজুর রহমান কালাম ছাড়া কাউকে তেমন মাঠে দেখা যায়নি। এদিকে একাদশ জাতীয় নির্বাচন যতই ক্ষনিয়ে আসছে সোনারগাঁ থেকে ততই নৌকার মনোনয়নের জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতারা। তাদের সাথে একাত্তত্বা ঘোষনা করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের নেতারা। তাদের দাবি জোটের জন্য যদি আসন ছেড়ে দিতে হয় সেটা দেওয়া হওক দেশের অন্য কোথাও থেকে কিন্তু সোনারগাঁয়ে আগামীতে নৌকার মনোনয়ন দিতে হবে। বিশেষ করে কাঁচপুর ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে কায়সার হাসনাতের একটি জনসভায় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুর হাই প্রথম মতিয়া চৌধুরীর কাছে এ দাবি জানান। তার দাবির সুত্র ধরে একাধিক জেলার নেতারাও একই দাবি জন্য জোড়ালো বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তাদের এ দাবির মূখে সোনারগাঁ থেকে সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত, তার চাচা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর চৌধুরী বিরু, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক এএইচএম মাসুদ দুলাল, ইঞ্চিনিয়ার শফিকুল ইসলাম, আনারুল কবির, ড. সেলিনা রহমান নৌকা প্রতিকের জন্য মাঠে কাছ করে যাচ্ছেন। সোনারগাঁয়ে প্রত্যেকটি মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদের দাবি মনোনয়ন যাকেই দেওয়া হওক না কেন। এখান থেকে নৌকার প্রতিকের প্রার্থী চাই। সেজন্য তারা মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা মাঠ ছাড়বোনা। এদিকে, নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার আশায় প্রার্থীদের মধ্যে শুরু হয়েছে প্রতিযোগিতা। সভা-সমাবেশ এমনকি জনসাধারনের সাথে চলছে তাদের মত বিনিময় সভা। একজন একটি সভা করলে আরেকজন আরেকটি সভা করে তার সাথে পাল্লা দিয়ে মাঠে রয়েছেন।

এছাড়া তৃনমুল নেতাদের দাবি গত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার স্বাধীনতার তেইশ বছর পর নৌকার জয় ছিনিয়ে নিয়ে এসে ছিলাম। আমরা নৌকার কর্মীরা একসাথে হতে পেরেছিলাম বলেই ৮২ হাজার ভোটে ধানের শীষকে পরাজিত করতে পেরেছিলাম। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এখান থেকে জাতীয়পার্টির এমপি হওয়ায় আওয়ামীলীগ দীন্নদর্শায় পরিনত হয়েছে। এবছরও যদি একই পরিস্থিতি হয় তাহলে সোনারগাঁ থেকে আওয়ামীলীগের চিহৃ নিঃচিহৃ হয়ে যাবে। তাই নেত্রীর কাছে অনুরোধ দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে লাঙ্গলকে ছাড় দেন কিন্তু সোনারগাঁ থেকে নয়। আমাদের দাবি একটাই সোনারগাঁ থেকে নৌকা, নৌকাই চাই। সেজন্য আমাদের মনোনয়ন প্রার্থীরা আমাদের দাবি আদায়ের জন্য মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution