• সকাল ১০:১৪ মিনিট বৃহস্পতিবার
  • ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁয়ে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তিন বাড়িতে ডাকাতি সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের মনোনয়নপত্র বিতরন সোনারগাঁয়ে মাদকসহ আটক ২, পিকআপ জব্দ রূপগঞ্জ আ.লীগ নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, গুলিবিদ্ধ ৬ ভোট পূর্ণগননার দাবি ইউপি সদস্যের নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন ১৬ জানুয়ারী সাকিবকে ছেড়ে দিয়েছে কলকাতা হাতিরঝিলে লাল-সবুজের বিজয় নিশান ওড়াবেন তারা সাকিবকে ছেড়ে দিয়েছে কলকাতা আবাসিক হোটেল থেকে সোনারগাঁয়ের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার, স্ত্রী-দেবর লাপাত্তা ইউএনও আতিকুল ইসলাম বদলি নতুন ইউএনও তৌহিদ এলাহি সোনারগাঁয়ে হামলায় মহিলাসহ যুবলীগের ৪ নেতাকে পিটিয়ে জখম, বাড়িঘর ভাংচুর সোনারগাঁয়ে চেয়ারম্যানের বাড়িতে হামলা, বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট ॥ ১০ জনকে কুপিয়ে জখম উপজেলা চেয়ারম্যান ও আহবায়ক সামসুল ইসলামের কেন্দ্রে নৌকা পেল ১৫৩ ভোট আষাঢ়িয়ারচরে পরাজিত প্রার্থীর বাড়িতে জয়ী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা, ককটেল উদ্ধার ইউপি নির্বাচনে কে কতো ভোট পেয়ে হার-জিত হলো মেম্বার ফেল করা হুমায়ুন কবির এবার ইউপি চেয়ারম্যান ব্যালটে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ লেখা সিল! জামপুরে নৌকার প্রার্থী হুমায়ুন কবির জয়ী ব্যালটে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ লেখা সিল!
দলীয় কোন নোটিশ পাইনি, তবে দলের যে কোন সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা করি..মাহফুজুর রহমান কালাম

দলীয় কোন নোটিশ পাইনি, তবে দলের যে কোন সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা করি..মাহফুজুর রহমান কালাম

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকমঃ সোনারগাঁ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম বলেছেন, বিভিন্ন মিডিয়ায় আমাকে শোকজ নোটিশ দিয়েছে বলে যে নিউজ প্রকাশিত হয়েছে সে ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না। এখন পর্যন্ত কোন চিঠি পাইনি। তবে, শুনেছি মিডিয়াকে নাকি কে বা করা একটি সাদা কাগজ পাঠিয়েছে সেখানে নাকি শোকজের কথাটি লেখা রয়েছে। দলীয় সাংগঠনিক নিয়ম অনুযায়ী কেউকে কোন নোটিশ দিয়ে তা অবশ্যই দলীয় প্যাডে দেয়া হয়। কিন্তু মিডিয়াকে যারা কাগজ দিয়েছে তারা নাকি সাদা কাগজে সই করা একটা চিঠি দিয়েছে। আমাকে নাকি শোকজ করা হয়েছে। আর দল যদি আমাকে শোকজ নোটিশ পাঠায় তাহলে তা দলীয় প্যাডে লিখিতভাবে জানাবে। আমাকে যদি দল শোকজ নোটিশ পাঠায় তাহলে আমি দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমি নোটিশের জবাব দিব।

তিনি আরে জানান, আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা সংগ্রমে উদ্ধুদ্ধ হয়ে ছাত্র জীবন থেকে রাজনীতি করি। তার সুযোগ্য মেয়ে শেখ হাসিনা দলের হার ধরার পর থেকে তার নির্দেশ অনুযায়ী ছাত্র জীবন থেকে এখনো পর্যন্ত দলকে আকড়ে ধরে সকল কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছি। দলের সকল দুঃসময়ে দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সকল নেতৃমুল নেতাকর্মীদের নিয়ে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রমে ঝাপিয়ে পড়েছি। বিএনপি জামায়াতের আমলে একাধিক মামলার আসামী হয়েছি। আওয়ামীলীগ করার সুবাদে পরিবারের সকল লোক মানসিক ভাবে নির্যাতিত হয়েছে। তারপরও আওয়ামীলীগের আর্দশ থেকে সামান্য বিশ্চুতি হয়নি। ভবিষ্যতেও হবো না। সারাটা জীবন শুধু দলকে ভালবেসে দলের জন্য কাজ করেছি। কোন দিন নেতা হওয়ার জন্য কাজ করেনি। দল আমাকে যা দিয়েছে তাই নিয়ে সন্তুষ্ট থাকার চেষ্টা করেছি। দল থেকে পাওয়া সামান্য সম্মানটুকু সকল নেতাকর্মীদের মাঝে বিলিয়ে দিয়ে দলকে সু সংগঠিত করার চেষ্টা করছি। দল যখন যাকে মনোনয়ন দিয়েছে তখন তারই হয়ে কাজ করেছি।

তবে, গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপি ও জামায়াতসহ অন্যান্য বড় দলগুলি অংশ না করায় উপজেলা নির্বাচনকে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ, আনন্দমুখর ও ভোটারদের মাঝে নির্বাচনের উৎসাহ উদ্দিপনা সৃষ্টি করতে সারা দেশের অনেক আওয়ামীলীগের নেতা নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন করেছে দলের স্বার্থ রক্ষা করার জন্য। তাদের মধ্যে আমিও একজন। সে জন্য নির্বাচনের পর আমি আমার ভুল বুঝতে পেরে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের সকল তৃনমুল ও নেতাকর্মীদের কাছে ক্ষমা চেয়েছি। দরকার হলে প্রধানমন্ত্রী ও দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ অন্যান্য প্রেসিডিয়াম সদস্যদের কাছেও ক্ষমা চাইব। আমি জানি আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌকার বিরুদ্ধে সারা বাংলাদেশে যারা নির্বাচন করেছে তাদের সবাই শোকজ নোর্টিশ দেওয়ার জন্য দলের সাধারণ সম্পাদককে নির্দেশ দিয়েছেন। আমি শেখ হাসিনার সেই নির্দেশকে ধন্যবাদ জানান। দলের বিরুদ্ধে যাওয়া মানে আত্মঘাতি। তিনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সে জন্য তিনি সারা বাংলাদেশের প্রায় ২ শতাধিক নেতাকর্মীকে শোকজের নোর্টিশ পাঠিয়েছেন। সে হিসেবে আমিও পাবো বলে মনে করি। সে জন্য বিচরিত হওয়ার কিছু নেই। কারণ আমি নৌকার বিরুদ্ধে একটি নির্বাচন করেছি। কিন্তু আওয়ামীলীগ ছেড়ে অন্য কোন দলে গিয়ে নৌকা পোড়াইনি। আমি দলে অনুপ্রবেশ কারীও না। ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতি করে এখানে এসেছি। আমি নৌকার লোক ছিলাম যতদিন বেঁচে থাকবো নৌকার পক্ষে কাজ করে মরবো। এছাড়া এখন আমি দলীয় কোন প্যাডে শোকজের নোর্টিশ পাইনি। যদি পাই তাহলে দলের সাংগঠনিক নিয়ম অনুযায়ী আমি আমার ভুলের বক্তব্য তুলে শোকজের জবাব দিব। জবাবের পর আমার দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের যদি মনে করেন আমাকে দলে রাখবেন তার হলে রাখবেন আর তিনি যদি মনে করেন আমি অযোগ্য আমাকে বাদ দেন তাহলেও আমার কোন দুঃখ থাকবেনা। আমি আমার নেত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদকের সিদ্ধান্ত মাথা পেতে নিয়ে একজন আওয়ামীলীগের সাধারণ কর্মী হয়ে সারা জীবন বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন বুকে লালন করে আমাদের নেত্রীর দেয়া আদেশ ও আমার অবস্থান থেকে দলের প্রতি যে ভালবাসা আমার অন্তরে রয়েছে সে ভালবাসা দিয়ে দলকে আগের মত সুসংগঠিত করার কাজ করবো।

গত উপজেলা নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেন। উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম। সেই সময় নৌকার মনোনয়ন পর সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন। সেই নির্বাচনের পর আওয়ামীলীগের দলীয় মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হয় যারা নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন করেছে তাদের শোকজ নোর্টিশ দিয়ে দল থেকে বহিস্কারের নির্দেশ দেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। পরে দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বহিস্কারের আদেশ প্রত্যাহার করে প্রথমে সবাই শোকজ নোটিশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই প্রেক্ষিতে গতকাল উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালামে শোকজ নোর্টিশ দিয়েছে বলে কিছু গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। সেই নিউজের পর নিউজ সোনারগাঁকে দেয়া এক সাক্ষাতকালে মাহফুজুর রহমান কালাম এ সব কথা বলেন।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution