• রাত ৮:৪৪ মিনিট মঙ্গলবার
  • ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
রোজা হবে ৩০টি: সৌদি আরব খালেদা জিয়া ও মান্নানের সুস্থতা কামনায় দোয়া ও ঈদ সামগ্রী বিতরন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহাগ রনির উদ্যোগে ২৫০০ জনকে ঈদ সামগ্রী বিতরন সোনারগাঁয়ে ১১ জনের নমুনায় ৬ জনের দেহে করোনা সনাক্ত চেয়ারম্যান প্রার্থী আল-আমিন সরকারের উদ্যোগে ১৫শ পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরন সোনারগাঁয়ে থানা ছাত্রদলের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সোনারগাঁয়ে চোরাই মোবাইল বেচাকেনার অভিযোগে ২জন আটক সোনারগাঁয়ে আরো ৬ জনের দেহে করোরা সনাক্ত রাস্তায় ঘুরে ঘুরে আওয়ামীলীগ নেত্রীর অসহায়দের ইফতার বিতরন কনকাপৈত ইউপি চেয়ারম্যান জাফর ইকবালের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ না:গঞ্জে মামুনুল হকের রিমান্ড শুনানী আবারও পেছালো সোনারগাঁয়ে বাড়ি মালিকের স্ত্রীকে হত্যা করে সর্বস্ব লুট সনমান্দিতে আবুল হাসেম রতনের ঈদ উপহার বিতরণ সাদিপুরে কনফিডেন্স এর উদ্যোগে ১ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা ইঞ্জিনিয়ার মাসুমের উদ্যোগে স্বজনদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ মোবারক হোসেন স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ যাত্রীবাহি প্রাইভেট উঠার আগে সাবধান. ওসি হাফিজুর ইসলাম সোনারগাঁয়ে ২ মহিলাসহ ৪ জনের দেহে করোনা সনাক্ত সোনারগাঁয়ে রূপায়ন কোম্পানির উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ পচা মাংস বিক্রির অপরাধে মদনপুরে কসাইকে জরিমানা
সোনারগাঁয়ের রাজনৈতিক হালচাল নিয়ে মোশারফ হোসেনের সাক্ষাতকার

সোনারগাঁয়ের রাজনৈতিক হালচাল নিয়ে মোশারফ হোসেনের সাক্ষাতকার

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:

২০০৯ সালে সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন মোশারফ হোসেন। তিনি প্রায় ২৭ বছর মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৪ সালে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পান তিনি। কিন্তু পরবর্তীতে মহাজোটের কারনে এ আসনটি জাতীয়পার্টিকে ছেড়ে দিতে হয়। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি এ আসন থেকে আবারো আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চাচ্ছেন। নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন গণসংযোগ ও সভা সমাবেশ করছেন নিয়মিত। সোনারগাঁয়ের সাম্প্রতিক রাজনৈতিক হালচাল ও আসন্ন সংসদ নির্বাচন নিয়ে তিনি কথা বলেছেন নিউজ সোনারগাঁ২৪ এর সাথে। আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মোশারফ হোসেনের সাক্ষাতকার নিয়েছেন সোনারগাঁয়ের তরুন লেখক ও সাংবাদিক রবিউল হুসাইন।

নিউজ সোনারগাঁ: আপনাদের পরিবার সোনারগাঁয়ে আওয়ামী পরিবার হিসেবে পরিচিত। এ পরিবার থেকে অনেকেই আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য হয়েছেন। আপনার ভাতিজা ২০০৮ সালে এ আসনে সাংসদ ছিলেন। ২০১৪ সালে তিনি মনোনয়ন বঞ্চিত হন। এর কারণ কি ছিল বলে আপনি মনে করেন?

মোশারফ হোসেন: আমার ভাতিজা আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত ২০১৪ সালে মনোনয়ন না পাওয়ার কার নেত্রীর সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে। তবে আমার মনে হয় তারও কিছু রাজনৈতিক অদূরদর্শিতার ছিলো ।

নিউজ সোনারগাঁ: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আপনার ভাতিজা কায়সার হাসনাত এমপি পদে মনোনয়ন পেলে আপনার ভূমিকা কি হবে?
মোশারফ হোসেন: ২০০৮ সালের নির্বাচনে আমি তার পক্ষে মাঠে ছিলাম। এবার যদি মনোনয়ন পায় আমি আগের চেয়ে বেশী ভূমিকা পালন করবো। এবং তার পক্ষে কাজ করবো।

নিউজ সোনারগাঁ: বিগত ৫ বছর সোনারগাঁয়ে মহাজোটের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা দায়িত্বে ছিলেন। তিনি সোনারগাঁয়ের যে উন্নয়ন কর্মকান্ড করেছেন আপনার কাছে এর মুল্যায়ন কি?

মোশারফ হোসেন: আমি সম্প্রতি গণসংযোগ করার জন্য উপজেলা পরিষদের দিকে গিয়ে দেখতে পাই সেখানে প্রায় ২শত সাইনবোর্ড টানিয়ে রাখা হয়েছে। এগুলো নাকি উন্ন্রয়ন মূলক কাজের উদ্বোধন। খোকা সাহেবের উন্নয়ন মানে সাইনবোর্ড সর্বস্ব উন্নয়ন। বাস্তবে তার প্রতিফলন নেই।

নিউজ সোনারগাঁ: বিগত ৫ বছরে এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা সোনারগাঁয়ে যেসব উন্নয়ন কর্মকান্ড করেছেন সেখানে কি আপনারা সম্পৃক্ত ছিলেন?

মোশারফ হোসেন: খোকা সাহেব আমাদের সাথে কোন ক্ষেত্রেই সমন্বয় করে কাজ করেননি। আমাদের আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা এ ৫ বছর বঞ্চিত হয়েছে।

নিউজ সোনারগাঁ: সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগের কমিটি নেই প্রায় ১৮ বছর। আগামী নির্বাচনে এর প্রভাব কতটুকু পড়তে পারে?

মোশারফ হোসেন: প্রভাব তেমন একটা পড়বে না তবে নতুন কমিটি হলে ভাল হতো। দীর্ঘদিন যাবত নতুন করে কমিটি না হওয়াতে নেতাকর্মীরা অনেকটা হতাশ।

নিউজ সোনারগাঁ: আপনি ২০০৯ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু ২০১৪ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত হয়েছিলেন। এ পরাজয়ের কারণ কি?

মোশারফ হোসেন: ২০০৯ সালের নির্বাচনে আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছিলাম। কিন্তু ২০১৪ সালের নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দুই জন প্রার্থী ছিল অন্যদিকে বিএনপির প্রার্থী ছিলো একজন। তাই বিএনপি সহজে জয় লাভ করেছে। তবে, আওয়ামীলীগের দুই প্রার্থীর ভোটের যোগফল বিএনপির প্রার্থীর চেয়ে অনেক বেশী ছিল।

নিউজ সোনারগাঁ: সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগের প্রায় ১০জন মনোনয়ন প্রত্যাশী মাঠে আছেন। যদি আপনার পরিবার থেকে কেউ মনোনয়ন না পান সেক্ষেত্রে অন্য যে কেউ মনোনয়ন পেলে তার পক্ষে কি আপনি কাজ করবেন?

মোশারফ হোসেন: অবশ্যই করবো। বর্তমানে দেশের যে পরিস্থিতি সে অনুযায়ী সোনারগাঁয়ে আমার শত্রুও যদি নৌকার মনোনয়ন পায় আমি নৌকাকে জয়ী করতে তার পক্ষেই কাজ করবো।

নিউজ সোনারগাঁ: যদি সোনারগাঁয়ে মহাজোটের প্রার্থী আবারও বহাল থাকে সেক্ষেত্রে আপনার ভুমিকা কি হবে?

মোশারফ হোসেন: আমরা আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় পর্যায়ে এ আসনের বিষয়টি অবহিত করেছি। আবারও যদি এখানে মহাজোটের প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হয় তাহলে এখানকার আওয়ামীলীগ বিপন্ন হবে। নেতাকর্মীরা গত ৫ বছর দলের সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। সুতরাং আশা করি নেত্রী এবার এখানে নৌকাকে মনোনয়ন দিবেন।

নিউজ সোনারগাঁ: সোনারগাঁ এক সময় বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ছিলো। বর্তমানে আপনি কি মনে করেন?

মোশারফ হোসেন: তখনকার পরিস্থিতি আর এখনকার পরিস্থিতি এক নয়। আমি বর্তমানে সোনারগাঁকে বিএনপির ঘাঁটি মনে করি না।

নিউজ সোনারগাঁ: ২০০৮ সালে আপনি কায়সার হাসনাতের সাথে ছিলেন এবার যদি আপনি মনোনয়ন পান সেক্ষেত্রে তাকে কি আপনার পাশে পাবেন?

মোশারফ হোসেন: এটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। সে আমার আপন ভাজিতা। সে যখন মনোনয়ন পেয়েছিলো আমি তারপক্ষে যতটুকু সম্ভব করেছি। আশা করি সেও আমার পাশে থাকবে।

নিউজ সোনারগাঁ: মহাজোটের এমপি জনপ্রতিনিধি ফোরাম নামে একটি সংগঠন করেছেন। আপনি এ সংগঠনকে কিভাবে দেখছেন? যদি এ আসনে মহাজোট প্রার্থী দেওয়া হয় এবং আপনি আলাদাভাবে নির্বাচন করেন সেক্ষেত্রে জনপ্রতিনিধি ফোরামের লোকজনকে সাথে পাবেন কিনা?

মোশারফ হোসেন: জনপ্রতিনিধি ফোরামের অস্থিত্ব আমি সোনারগাঁয়ে দেখি না। জনপ্রতিনিধি ফোরামের লোকজন আমার পাশে পাওয়ার দরকার নাই। জনগনকে পাশে পেলেই হবে।

নিউজ সোনারগাঁ: এ আসনে একাদশ সংসদ নির্বাচনে মহাজোট মনোনয়ন পেলে আপনি কি স্বতন্ত্র নির্বাচন করবেন কিনা?

মোশারফ হোসেন: আমার কর্মী সমর্থকরা স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার কথা চিন্তা করে থাকতে পারে। কিন্তু বর্তমানে আমি তা ভাবছি না। নির্বাচনের দল যদি আবারো এখানে মহাজোটকে মনোনয়ন দেন তাহলে আমি তখনকার পরিস্থিতি অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেব।

নিউজ সোনারগাঁ: আপনি যদি মনোনয়ন পান তাহলে সোনারগাঁয়ে বিএনপি নাকি জাতীয়পার্টিকে শক্ত প্রতিদ্বন্ধি মনে করেন?

মোশারফ হোসেন: অবশ্যই আমি বিএনপিকে শক্ত প্রতিদ্বন্ধি মনে করি। সোনারগাঁয়ে জাতীয়পার্টির অবস্থান শুন্য।

নিউজ সোনারগাঁ: আপনি যদি এমপি নির্বাচিত হন তাহলে সোনারগাঁয়ে কোন বিষয়টি উন্নয়নের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবে?

মোশারফ হোসেন: আমি প্রতিশ্রুতি দিয়ে কোন উন্নয়ন কাজ করিনা। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ও কাউকে প্রতিশ্রুতি দেই নাই। যখন যে সমস্যা সামনে এসেছে সেটাই সমাধান করার চেষ্টা করেছি। সুতরাং আমি সমস্যা অনুযায়ী উন্নয়ন কাজ করবো।

নিউজ সোনারগাঁ: সোনারগাঁয়ে মাদক একটি বড় সমস্যা সেক্ষেত্রে আপনার ভূমিকা কি থাকবে?

মোশারফ হোসেন: কোন জনপ্রতিনিধির পক্ষে মাদক নির্মূল করা সম্ভব নয়। মাদক নির্মূল করতে হলে প্রশাসনের স্বদিচ্ছার প্রয়োজন। প্রশাসন চাইলে সোনারগাঁয়ে মাদকের প্রভাব অনেকটাই কমে যাবে। তবে, জনপ্রতিনিধিরা সামাজিক ভাবে মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনামূলক কাজ করতে পারে।

নিউজ সোনারগাঁ: সোনারগাঁবাসীর উদ্দেশ্যে আপনার বক্তব্য কি?

মোশারফ হোসেন: আমি সোনারগাঁবাসীর উদ্দেশ্যে বলেতে চাই। আপনারা আসন্ন নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে একজন যোগ্য, দক্ষ ও ভালো মানুষকে নির্বাচিত করবেন। যাতে আপনাদের সঠিক সেবা দিতে পারে।

 


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution