• রাত ১২:১০ মিনিট সোমবার
  • ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
মেম্বার ফেল করা হুমায়ুন কবির এবার ইউপি চেয়ারম্যান ব্যালটে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ লেখা সিল! জামপুরে নৌকার প্রার্থী হুমায়ুন কবির জয়ী ব্যালটে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ লেখা সিল! শম্ভুপুরা, সাদিপুর ও নোয়াগাঁয়ে যারা চেয়ারম্যান হলেন সনমান্দিতে একটি কেন্দ্রের ভোট স্থাগিত সোনারগাঁয়ে শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহন শেষে চলছে গননা সোনারগাঁয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো ইউপি নির্বাচন সোনারগাঁয়ে ১২ জনের নমুনায় ৩ জনের দেহে করোনা সনাক্ত উপজেলার প্রতিটি ইউপিতে শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহন শান্তিপূর্ন ভাবে চলছে পিরোজপুর ইউপিতে ভোট গ্রহন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের বাড়িতে হামলা এই নির্বাচন যেন বর্তমান ও সাবেক এমপি’র লড়াই সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষক কার্ড রাজনীতিবিদের হাতে রাত পোহালে ৮টি ইউপিতে ভোট যুদ্ধ, নিরাপত্তা নিয়ে শংকা আগামীকাল সোনারগাঁয়ের ৩৮৯ জন প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারন সোনারগাঁয়ে নারীসহ ২ মাদক কারবারী গ্রেপ্তার ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী জয়ের ট্রাম্পকার্ড বিএনপি নৌকা জেতাতে মাঠ ছাড়ছেন না কালাম আজ মধ্যে রাতে শেষ হচ্ছে নির্বাচনী প্রচারনা
সোনারগাঁয়ে একই স্থানে আ’লীগের দু’গ্রুপের সভা, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

সোনারগাঁয়ে একই স্থানে আ’লীগের দু’গ্রুপের সভা, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

Logo


নিউজ সোনারগা৭২৪টকম: সোনারগাঁ উপজেলার জামপুর ইউনিয়নে একই স্থানে আওয়ামীলীগের দু’পক্ষের সভা আহবান করা হয়েছে। এ সভাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে স্থানীয়রা। তবে প্রশাসন বলেছে দু’পক্ষকে একই স্থানে সভা না করে ভিন্ন জায়গার করার করা বলা হয়েছে। তারা যদি একই স্থানে সভা করতে চায় তাহলে সংঘর্ষ এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সভা বন্ধ করে দেয়া হবে। তবে, আওয়ামীলীগের দু’পক্ষই এখনও একই স্থানে সভা করার সিদ্ধান্তের আনড় রয়েছে বলে জানিয়েছেন দু’পক্ষের আয়োজকরা।

জানাগেছে, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগ দীর্ঘদিন ধরে কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে তাদের কর্মসূচী পালন করে আসছে। এছাড়া সম্প্রতিকালে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন নিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে।একটি ভাগে রয়েছেন সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম ও কেন্ত্রীয় আওয়ামীলীগের উপ-কমিটির সাবেক সহসম্পাদক এএইচএম মাসুদ দুলাল ও ড. সেলিনা আক্তার। অপর পক্ষে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া, ডাঃ বিরু ও ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম। আহবায়ক কমিটি ঘোষনার পরই একটি পক্ষ আরেকটি পক্ষকে প্রতিহতের ঘোষনা দিয়ে আসছে অনেক দিন ধরেই। তারই ধারাবাহিকতায় সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে জামপুর ইউনিয়নের উটমা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আজ শুক্রবার বিকাল ৩টায় জামপুর ইউনিয়ন যুবলীগের পক্ষে থেকে একটি বর্ধিত সভার আয়োজন করে। অপরদিকে, জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলন উপলক্ষে একই বিদ্যালয়ে বিকাল ৩টায় সম্মেলনের প্রস্তুতিমুলক সভার আয়োজন করেছে। এ সভাকে ঘিরে আওয়ামীলীগের দুটি গ্রুপই স্ব- স্ব স্থানে থেকে প্রস্তুতি সম্পুন করেছে। তারা দু’পক্ষই যে কোন মুল্যে এখানে সভার করা ঘোষনা দিয়েছে। তবে এ সভাকে ঘিরে উভয় পক্ষের নেতাকর্মীরা মারমুখী অবস্থানে রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তবে, স্থানীয়রা মনে করেন জামপুরে যুবলীগ ও জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ দু’পক্ষই শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। ফলে এ সভাকে ঘিরে দু’পক্ষের মধ্যে যে কোন বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু, আমরা সপ্তাহ খানেক আগে জামপুর যুবলীগের পক্ষ থেকে উটমা বিদ্যালয়ে সভা করার জন্য প্রশাসনকে জানিয়েছে। আমাদের সভা করার কথা শুনে আরেকটি পক্ষ আওয়ামীলীগের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি করে দলের বদনাম করার চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া জানান, জামপুর আওয়ামলীগের উদ্যোগে আমরা একটি প্রস্তুতিমুলক সভা ডেকে ছিলাম উটমা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। সেখানে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আসার কথা রয়েছে। কিন্তু এখন শুনি যুবলীগও নাকি একটি ভুয়া সভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারা একটি দ্ধন্দ তৈরী করার জন্য এ সভা আহবান করেছে। তবে যতই বাধা আসুক আমরা আমাদের সভা করার জন্য সকল প্রস্তুুতি সম্পুর্ন করেছি।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন, উটমা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সভা করার জন্য আওয়ামীলীগের কোন পক্ষই আমাদের কাছ থেকে কোন অনুমতি নেয়নি। তবে, দু’পক্ষকেই সহনশীল হয়ে একই স্থানে সভা না করে আলাদা আলাদা স্থানে সভা করার জন্য বলা হয়েছে। এরপর যদি কোন গ্রুপ না মানে তাহলে আমরা সভা বন্ধ করে দিব।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার সরকার জানান, ব্যাপারটি আমি এ মাত্র শুনলাম। আমি থানা পুলিশের সাথে কথা বলে ঘটনাটির বিস্তারিত জেনে ব্যবস্থা নেব। দু’পক্ষের সংঘর্ষ এড়াতে প্রয়োজনে সভা বন্ধ করার ব্যবস্থা করবো।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution