• সকাল ৮:৪৬ মিনিট মঙ্গলবার
  • ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : হেমন্তকাল
  • ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁয়ে ৬০০ কৃষককে সার ও বীজ দিলেন কৃষি অফিস সোনারগাঁয়ে দুই পেঁয়াজ ব্যবসায়ীকে জরিমানা সোনারগাঁয়ে পিইসি পরীক্ষার প্রথম দিনে অনুপস্থিত ৪২৯ মোবাইল ও ঔষধের দোকানে চুরি, সাড়ে ১৪ লাক্ষ টাকার মালামাল লুট মা’কে পেটানোর অভিযোগে ইমাম গ্রেফতার ইউএনও’র হুসিয়ারী, শিক্ষা কর্মকর্তা- শাহ আলীর সুসর্ম্পক, ছাড় পেল না পরীক্ষার্থীরা খোঁজ মিলছে গৃহবধু সাথী আক্তারের সোনারগাঁয়ে ফেন্সিডিল ও গাঁজা সহ গ্রেপ্তার -২ সাংবাদিক বাবুল মোশাররফের ইন্তেকাল,সর্ব মহলের শোক ঝাউচর মাদ্রাসায় কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরন ২৫ টাকার পেয়াজ কেন ২৫০ টাকা ? ব্যবসায়ীর বাড়ি ঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় থানায় মামলা সোনারগাঁয়ে ১৪০০ পিস ইয়াবাসহ কামাল আটক সোনারগাঁয়ে ২মাস ধরে গৃহবধু নিখোঁজ, থানায় অভিযোগ সংস্কারের অভাবে হোসেনপুর সড়কের বেহাল দশা বারদীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান জেলেদের খাদ্য সহায়তার চাল পেতে সাড়ে ৫ ঘন্টা অপেক্ষা সোনারগাঁ সেন্ট্রাল হাসপাতালের যাত্রা শুরু নিয়ম ভেঙ্গে ফরম ফিলাপের চারগুণ টাকা আদায় করছে এস আর স্কুল সভাপতির যোগ্যতা স্নাতক করায় পদ হারাতে পারে সোনারগাঁয়ে অনেক নেতা
সোনারগাঁয়ে টাকার অভাবে পড়াশুনা বন্ধের পথে মেধাবী জয়নালের

সোনারগাঁয়ে টাকার অভাবে পড়াশুনা বন্ধের পথে মেধাবী জয়নালের

নিউজ সোনারগিঁ২৪ডটকমঃ টাকার অভাবে বন্ধ হওয়ার পথে সোনারগাঁও পৌরসভার গোয়ালদী গ্রামের মেধাবী ছাত্র মো. জয়নাল উদ্দিনের পড়াশুনা। দরিদ্র পিতার সন্তান জয়নাল উদ্দিন ২০১৬ সালে সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ ৫ পেয়ে কৃতিত্বের সাথে এস এস সি পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়। পরে সে স্থানীয় সোনারগাঁ ডিগ্রী কলেজে এইচ এস সি তে ভর্তি হয়। তার দরিদ্র পিতার পক্ষে পড়াশুনা চালিয়ে নেয়া দূরুহ হয়ে পড়েছে। চার ভাই বোনের মধ্যে জয়নাল উদ্দিন সবার বড়। বাকী তিন বোনও পড়াশুনা করছে। এক বোন এইচ এস সি প্রথম বর্ষ, আরেক বোন এ বছর এস এস সি পরীক্ষা দিয়েছে সবার ছোট বোন ক্লাস টুতে পড়ে। জয়নালের পিতা কৃষি কাজ করে সংসার চালায় পাশাপাশি চার সন্তানকে পড়াশুনা করাচ্ছেন। তার পক্ষে সন্তানদের ভরন পোষন দিয়ে পড়াশুনা চালিয়ে নেয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে।
মো. জয়নাল উদ্দিন জানান, আমার বাবা অনেক কষ্ট করে সব ভাই বোনকে পড়াশুনা করাচ্ছেন। সংসার চালিয়ে এখন আর তিনি পড়াশুনার খরচ জোগার করতে পারছে না। আমি পড়াশুনার ফাঁকে ফাঁকে রাজমিস্ত্রির কাজ করে পড়াশুনার খরচ চালানোর চেষ্টা করছি কিন্তু এতে পড়াশুনার ক্ষতি হয় তাই সব সময় কাজ করতে পারি না।

মো. জয়নাল উদ্দিনের বাবা মো. হানিফ জানান, আমার ছেলে ছোট বেলা থেকেই খুব মেধাবী। টাকার অভাবে আমার ছেলের পড়াশুনা বন্ধ হয়ে যাবে এটা ভাবলেই খুব কষ্ট হয়। ছেলেটা তার পড়াশুনা চালিয়ে যেতে পারলে একদিন সংসারের হাল ধরতে পারতো। তার বোনদের পড়াশুনাও বন্ধ হতো না।

এই নিউজটি শেয়ার করুন...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution