• সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিট বৃহস্পতিবার
  • ১৯শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : বসন্তকাল
  • ২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁয়ে ইউপি সদস্যের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ রাতের আধারে পৌরসভার ভট্টপুরে এমপি ও নির্বাহী কর্মকর্তার ত্রাণ বিতরণ ♦১ এপ্রিল: ইতিহাসের এক কালো অধ্যায়♦ হারিয়ে যাওয়া এক ইতিহাস ‘মুড়ির টিন’ সোনারগাঁয়ে বিচার সালিশকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্যসহ ৬জনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করোনাভাইরাস: বাংলাদেশে সাধারণ ছুটি আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত সামাজিক দূরত্ব না বলে আসুন বলি শারীরিক দূরত্ব: রবিউল হুসাইন মান্নানের উদ্যোগে ২ শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে শ্রমিক দলের ত্রাণ বিতরন সাদিপুর ইউনিয়নে দুস্থ-অসহায় পরিবারে মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ সোনারগাঁয়ে কর্মহীন হত দারিদ্রের মাঝে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ রাতের আধারে এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত সামাজিক উদ্যোগে অসহায়দের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির দাফন ও সৎকারের দায়িত্ব নিতে চান কাউন্সিলর খোরশেদ সোনারগাঁয়ে মঙ্গলেরগাঁও আদর্শ জনসেবা সংগঠনের উদ্যোগে ত্রান বিতরন বুলবুল আহম্মেদের উদ্যোগে চিলারবাগ গ্রামে খাদ্য সামগ্রী বিতরন সোনারগাঁয়ে অসহায় পরিবারে মাঝে স্বেচ্ছাসেবক দলের ত্রাণ বিতরণ আড়াইহাজারে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী টেটাবিদ্ধসহ আহত ১০ পিরোজপুর ইউপি’র গ্রাম পুলিশদের সুরক্ষায় দায়িত্ব নিলেন চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুম সোনারগাঁয়ে সহস্রাধিক অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন রূপায়ন
করোনার প্রভাবে রোগী কম সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

করোনার প্রভাবে রোগী কম সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

নিউজ সোনারগাঁ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ করোনার প্রাদুর্ভাবে আগের তুলনায় রোগি কমেছে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। যেখানে গড়ে ৬/৭ শত রোগী হত সেখানে ২ শতে নেমে এসেছে। অতি প্রয়োজন ছাড়া কেউ আসেন না হাসাপাতালে। তবে কম রোগী হওয়াকে ভাল লক্ষণ হিসেবে দেখছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লোকজন।

সরেজমিনে সকাল ১১ টার দিকে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স দেখা যায় বারান্দায় তেমন কোন গাড়ি নেই।।বর্হি বিভাগে প্রবেশ করে দেখা যায় যেখানে টিকেটের জন্য ছিল তীব্র লাইন আর আজ সেখানে কয়েকজন মহিলা টিকেট কাউন্টারে দাড়িয়ে আছেন টিকেটের জন্য।  ইর্মাজেন্সীতেও তেমন কোন রোগী নেই।  শুধু কাশি ঠান্ডা নিয়ে আসা রোগী দেখছেন তারা। অন্যান্য বিভাগগুলোতেও ছিল না কর্মব্যস্ততা। হাসপাতালের ফার্মেসীতেও ছিলা না ঔষুধের জন্য দীর্ঘ লাইন।

রোগীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের কারনে হাসপাতালে তেমন কেউ এ মুর্হুতে আসতে চায় না। যাদের খুব বেশী প্রয়োজন একমাত্র তারাই আসছেন। কারন হিসেবে তারা জানান এ মুর্হুতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীরা বেশী আসতে পারে হাসপাতালে আর করোনা যেহেতু ছোয়াচে রোগ তাই যে কোন ভাবে এ রোগীর মাধ্যমে অন্য মানুষও আক্রান্ত হতে পারে। এজন্য খুব জরুরী ছাড়া কেউ আসেন না হাসপাতালে।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা পলাশ কুমার জানান, হাসপাতালে রোগী না আসটা ভাল লক্ষন। তবে, করোনা আতঙ্কে রোগীরা খুব জরুরী ছাড়া হাসপাতালে প্রবেশ করেন না।

এই নিউজটি শেয়ার করুন...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution