• বিকাল ৩:৪০ মিনিট বুধবার
  • ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
যেতে_যেতে_পথে দরগাবাড়ি_নহবতখানা মনোনয়ন জমা দিয়ে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে নৌকার পরিবার দাবি, নৌকা না পেলেই বিদ্রোহী, এড. সামসুল ইসলাম মোগরাপাড়া ইউপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন যারা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আহবায়ক কমিটি, যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন দায়িত্ব বুঝে নিলেন নতুন প্রশাসক নির্বাচনের ঘোষনা দিলেন আরিফ মাসুদ বাবু ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে জামায়াত সোনারগাঁয়ে অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত গ্রেপ্তার মেয়াদের ১৫ মাস পর সোনারগাঁও পৌরসভার প্রশাসক নিয়োগ আহবায়ক কমিটির সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করলেন আরিফ মাসুদ বাবু বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুনামেন্টে জামপুর ইউনিয়ন ৫ – ০ গোলে জয়ী বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুনামেন্টে ২-০ গোলে বিজয়ী বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদ শিল্প-কারখানা স্থাপন ও ভরাটে বদলে গেছে সোনারগাঁয়ের মানচিত্র বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্ণামেন্টে জামপুর বনাম নোয়াগাঁও খেলা ড্র দবিরউদ্দিন ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবকদের সাথে মত মিনিময় সভা ওদের কাজ হলো ষড়যন্ত্র করা, এমপি খোকা সোনারগাঁ সংঘের নতুন কমিটি গঠন আরিফ মাসুদ বাবু’র সমর্থন চাইলেন সোহাগ রনি মনোনয়নের সংবাদ শুনে রাস্তায় সেজদায় লুটিয়ে পড়েন সোহাগ রনি’র নেতাকর্মীরা
লেখক হাজী মহসিনকে হেয় করার চেষ্টা, থানায় অভিযোগ

লেখক হাজী মহসিনকে হেয় করার চেষ্টা, থানায় অভিযোগ

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:

সোনারগাঁ উপজেলার তরুন লেখক হাজী মোহাম্মদ মহসিনকে সামাজিক ভাবে হেয় করতে উঠে পড়ে লেগেছে সমাজের কিছু সমাজচ্যুত লোকজন। এ ঘটনায় হাজী মোহাম্মদ মহসিন বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

ডায়েরীতে হাজী মোহাম্মদ মহসিন উল্লেখ করেন, তিনি যুগান্তরসহ বিভিন্ন পত্রিকায় লেখালেখি করেন। গত ২৯ জুন বিকাল ৫টার দিকে মজহমপুর স্কুল ছাত্র পরিষদ নামের একটি ফেইসবুক আইডি থেকে কে বা কাহারা তার বিরুদ্ধে মানহানীর কর বিভিন্ন অশ্লালীন কুরুচিপূর্ন কথা লিখে পোষ্ট করেন। এতে করে সামাজে তার মানহানি ঘটেছে।যা মিথ্যা বানোয়াট বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। এ ঘটনায় হাজী মোহাম্মদ মহসিন সোনারগাঁ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

ফেইসবুকে যা লেখা হয়েছে তা হুবহুব তুলে ধরা হলো:

সোনারগাঁওয়ের উদ্ভবগঞ্জ এলাকার হাজী মোহাসিন নামের এক ঔষধের দোকানদার নিজেকে যুগান্তর পত্রিকার চিঠিপত্র কলামে প্রকৃতি বিষয়ক লেখক ও গবেষক দাবী করেছেন। তিনি প্রকৃতি বিষয়ে লেখালেখি করেন ভালো কথা। তিনি কি বিষয়ে গবেষণা করেন এ বিষয়ে কারো জানা থাকলে জানাবেন। আসলে তিনি গুগল থেকে লেখা নিয়ে এদিক সেদিক করে লেখে পত্রিকায় পাঠান। এটি আবার পত্রিকায় ঘটা করে ছাপিয়ে নিজেকে বড় লেখক দাবী করেন। তিনি আসলে কাট কপি লেখক। কাট কপি লেখক হয়ে তিনি নিজেকে কিভাবে গবেষক দাবী করেন। আমার জানা মতে সোনারগাঁয়ে তেমন গবেষক পাওয়া যায়নি। তিনি আবার কোন গবেষক।

হাজী মোহাম্মদ মহাসিনের লেখা দুটি ফিচার নিম্মে দেওয়া হলো:


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution