• বিকাল ৪:৪০ মিনিট বুধবার
  • ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : গ্রীষ্মকাল
  • ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
যেতে_যেতে_পথে দরগাবাড়ি_নহবতখানা মনোনয়ন জমা দিয়ে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে নৌকার পরিবার দাবি, নৌকা না পেলেই বিদ্রোহী, এড. সামসুল ইসলাম মোগরাপাড়া ইউপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন যারা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আহবায়ক কমিটি, যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন দায়িত্ব বুঝে নিলেন নতুন প্রশাসক নির্বাচনের ঘোষনা দিলেন আরিফ মাসুদ বাবু ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে জামায়াত সোনারগাঁয়ে অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত গ্রেপ্তার মেয়াদের ১৫ মাস পর সোনারগাঁও পৌরসভার প্রশাসক নিয়োগ আহবায়ক কমিটির সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করলেন আরিফ মাসুদ বাবু বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুনামেন্টে জামপুর ইউনিয়ন ৫ – ০ গোলে জয়ী বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুনামেন্টে ২-০ গোলে বিজয়ী বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদ শিল্প-কারখানা স্থাপন ও ভরাটে বদলে গেছে সোনারগাঁয়ের মানচিত্র বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্ণামেন্টে জামপুর বনাম নোয়াগাঁও খেলা ড্র দবিরউদ্দিন ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবকদের সাথে মত মিনিময় সভা ওদের কাজ হলো ষড়যন্ত্র করা, এমপি খোকা সোনারগাঁ সংঘের নতুন কমিটি গঠন আরিফ মাসুদ বাবু’র সমর্থন চাইলেন সোহাগ রনি মনোনয়নের সংবাদ শুনে রাস্তায় সেজদায় লুটিয়ে পড়েন সোহাগ রনি’র নেতাকর্মীরা
সোনারগাঁয়ে চৈতী কম্পোজিটের নির্গত বর্জ্য অপসারনের প্রতিবাদের মানববন্ধন

সোনারগাঁয়ে চৈতী কম্পোজিটের নির্গত বর্জ্য অপসারনের প্রতিবাদের মানববন্ধন

Logo


নিউজ সোনারগাঁ২৪ডটকম:

সোনারগাঁও পৌরসভার টিপরদী এলাকায় অবস্থিত চৈতী কম্পোজিট থেকে নির্গত বিষাক্ত বর্জ্য অপসারনের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। সোমবার দুপুরে চৈতী কম্পোজিটের সামনে এ মানববন্ধন করে এলাকাবাসী। এতে পৌরসভার কয়েকশত নারী-পুরুষ অংশ গ্রহন করেন।
মানববন্ধনে এলাকাবাসী বলেন, সোনারগাঁও পৌরসভা এলাকায় চৈতী কম্পোজিট নির্মান করার পর থেকে এসব এলাকার জনসাধারণের বসতবাড়ি ও ফসলি জমি জোড়পূর্বক দখল করে আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান নির্মান করা হয়। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে নির্গত বিষাক্ত বর্জ্য পৌরসভা ও মোগরাপাড়া ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়নের পরিবেশ মারাত্মক দূষন করছে। বর্জ্যগেুলো গোপন সুয়ারেজের মাধ্যমে বিভিন্ন খাল ও নদীতে ফেলা হচ্ছে এতে পৌরসভা ও মোগরাপাড়া ইউনিয়নের খাল ও জলাশয়গুলোর পানি কালো রং ধারন করেছে। এতে এসব এলাকায় খাল ও জলাশয়ের মাছ মরে গিয়ে মাছ বিহীন খালে পরিনত হয়েছে। এছাড়া পানিতে থাকা অতিমাত্রার কেমিক্যাল এসব এলাকার ফসলি জমিগুলো ফসল নস্ট করে মারাত্মক ঝুঁকিতে ফলছে পরিবেশের। বর্জ্যের পানিতে এসব এলাকার জনসাধারন বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে। অনেকে আবার পানি বাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে হাত-পায়ে চুরকানী হয়ে তা থেকে ঘা হয়ে ইনফেকশনে সারা জীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে গেছে। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে পরিবেশ অধিদপ্তর তিন দফা প্রতিষ্ঠানটিকে কয়েক লাখ টাকা জরিমানা আদায় করলেও বন্ধ হচ্ছে না তাদের বর্জ্য ফেলা। চৈতী কম্পোজিটের কর্তৃপক্ষ প্রশাসন, স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তি ও বিশেষ পেশার লোকদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে এসব কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে চৈতী কম্পোজিটের আশপাশে লোক বসবাস অযোগ্য হয়ে পড়বে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হবে পরিবেশ। চৈতী কম্পোজিটের আশপাশের খাল-বিল নদীনালা ও জলাশয়গুলোকে রক্ষা করতে হলে সরকারের নিয়মনুযায়ী ইটিবি ব্যবহার করে নদী নালা খাল বিল ও ফসলি জমি রক্ষার আহবান জানানো হয় এ মানববন্ধন থেকে।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution