• ভোর ৫:২০ মিনিট বৃহস্পতিবার
  • ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  • ঋতু : বসন্তকাল
  • ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
এই মাত্র পাওয়া খবর :
সোনারগাঁও পৌরসভায় বৃদ্ধ শ্বশুরকে কুপিয়ে জখম করলো ছেলের বউ আমার দেয়ার কিছু নেই কিন্তু আপনাদের নেয়ার অনেক কিছু আছে..এমপি কায়সার হাসনাত আদমপুর বাজারে হাটার রাস্তা সরু করে অবৈধ দোকান নির্মাণ আনন্দবাজার হাটের ইজারা পেলেন প্যানেল চেয়ারম্যান নবী হোসেন সোনারগাঁয়ে ৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার কাঁচপুরে গ্রেপ্তার এড়াতে ৬ তলা থেকে লাফিয়ে পড়লেন যুবক জামপুরে মাহফুজুর রহমান কালামের উঠান বৈঠক সোনারগাঁয়ের কান্দারগাঁয়ে ১২ বছরে ৪ খুন, আহত-৫০ এলাকা ছাড়া ৫০ পরিবার পিরোজপুর কান্দারগাঁয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষে ১ জনকে কুপিয়ে হত্যা জনগণের দোয়া চেয়ে গণসংযোগ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ আলী হায়দার এসএসসি পরীক্ষার্থী অভিভাবকদের বসার জন্য সোহাগ রনি’র ছাউনী নির্মাণ এসএসসি পরীক্ষার্থী অভিভাবকদের বসার জন্য সোহাগ রনি’র ছাউনী নির্মাণ ১১ই মে তারিখে সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আহত যুবলীগ নেতা নাছিরের খোঁজ নেননি দলীয় নেতারা উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আলী হায়দার এর গণসংযোগ সোনারগাঁয়ে ১০টি টিনশেট ও ১টি দোকান পুড়ে ছাই, ১০ লাখ টাকার ক্ষতি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রস্তুতি মুলক সভা টুমোরো নেভার কামস❞ জামপুরে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে এমপি কায়সার আনসার ও টুরিস্ট পুলিশের হামলায় সোনারগাঁ যুবলীগের প্রচার সম্পাদক নাছির আহত সনমান্দি ইউনিয়নবাসীর দোয়া নিয়ে আলী হায়দারের নির্বাচনী প্রচারনা শুরু
সোনারগাঁয়ে মনোনয়ন কেনার হিরিকে কে কে আছেন ভোটে এগিয়ে

সোনারগাঁয়ে মনোনয়ন কেনার হিরিকে কে কে আছেন ভোটে এগিয়ে

Logo


নিউজ সোনারগাঁ টুয়েন্টিফোর ডটকম: দ্বাদশ নির্বাচনকে সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে মনোনয়ন কেনার হিরিক পড়েছে। নেতা থেকে শুরু করে কর্মীরা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছে। যাদের নির্বাচনে জয়ী হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে আবার যাদের মনোনয়ন বাজেয়াপ্ত হয়েছে তারাও রয়েছে মনোনয়ন সংগ্রহের তালিকায়। তবে মনোনয়ন সংগ্রহ করে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করার সবার অধিকার থাকলে এমন কিছু নেতাকর্মী মনোনয়ন কিনেছেন তারা নির্বাচনে বিজয়ী তো দুরের কথা সাধারণ জনগন তাদের চিনেন না। তবে ভোটারা বলেছেন মনোনয়রপত্র তাদেরই কেনা উচিত যারা জনগনের সাথে সম্পৃক্ততা রয়েছে। রয়েছে ভোট ব্যাংক।ে

জানাগেছে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্টিত হবে আগামী ৭ই জানুযারী। সেই নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান ক্ষমতাশীন দল আওয়ামীলীগসহ তাদের সমমনা দলগুলো মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে সোনারগাঁয়ে জাতীয়পার্টি ও আওয়ামীলীগের ১৬ জন মনোনয়ন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তাদের মধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন কিনেছেন ১৫জন। এদের মধ্যে নেতা থেকে শুরু করে কর্মীও রয়েছেন। এরা হলেন, সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান আওয়ামীলীগের সদস্য মাহফুজুর রহমান কালাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়াামী লীগের সাবেক সদস্য এডভোকেট হোসনে আরা বাবলি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও গবেষণা উপ কমিটির সদস্য এ এইচ এম মাসুদ দুলাল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু, আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত মোবারক হোসেনের ছেলে এরফান হোসেন দীপ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান উপ-কমিটির সদস্য দীপক কুমার বনিক দীপু, কাঁচপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ও তার সহোদর সোনারগাঁ উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মো. বাবুল ওমর বাবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মারুফুল ইসলাম ঝলক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মনির হোসেন, আওয়ামী লীগের সমর্থক আনোয়ার হোসেন, জসিমউদ্দিন ও মতিন খাঁন।

এ ব্যাপারে নেতাকর্মীরা জানান, আসন্ন সংসদ নির্বাচনে যারা আওয়ামীলীগের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন তাদের মধ্যে সাবেক এমপি কায়সার হাসনতের অবস্থান প্রথম। কারণ ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি ৮২ হাজার ভোটে বিএনপির মুক্তিযোদ্ধা প্রতিমন্ত্রী রেজাউল করিমকে পরাজিত করছিলেন। তাকে মনোনয়ন দিলে সংসদ নির্বাচনে জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা বেশী। এরপর দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন  মাহফুজুর রহমান কালাম। কারণ মাহফুজুর রহমান কালাম গত তিনবার উপজেলা নির্বাচনে হিসেবে নির্বাচন করছিলেন। সেই নির্বাচনে ৩বার পরাজিত হলেও তার রয়েছে বিশাল কর্মী বাহিনী ও ভোট ব্যাংক। মনোনয়ন পেলে হয়তো সেই ভোট ব্যাংক ও কর্মীদের দ্বারাই নির্বাচিত হতে পারেন। এরপর রয়েছেন এরফান হোসেন দীপ। তিনি সাবেক এমপি মোবারক হোসেনের ছেলে। দীপ গত ৪ বছর ধরে নৌকার মনোনয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। অল্প দিনে তিনি সারা উপজেলা তৈরী করেছেন কর্মী বাহিনী।

অপরদিকে বাবু ওমর রয়েছেন নৌকার দাবিদার। তিনি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান। তিনি গত উপজেলা পরিষদে নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করছিলেন। নৌকার অরেক দাবিদার তার ভাই মোশারফ হোসেন। তিনি কাঁচপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। তিনি গত এক বছর ধরে নৌকার মনোনয়নের জন্য দৌড়ঝাপ করছেন। তিনি কাঁচপুরের চেয়ারম্যান হলেও উপজেলায় নেই তার বিচরন। এরপর ডাক্তার আবু জাফর চৌধুরী বিরু রয়েছেন। তিনি গত ১০ বছর ধরে নৌকার মনোনয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি প্রতিটি উপজেলায় কম বেশী কর্মী তৈরী করেছেন। তবে ভোটের রাজনীতিতে তেমন এগুতে পারেননি। অপরদিকে এইচএম মাসুদ দুলাল ও রয়েছেন দীপক কুমার বনিক। তারা দুজনই কেন্দ্রে রাজনীতি করেন। তবে বিভিন্ন আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে রয়েছে তাদের সম্পৃক্ততা। সারা উপজেলার ভোটের রাজনীতিতে তারা তেমন সুবিধা করতে পারেননি। এদিকে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পত্র কিনেছেন সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া ও তার ছেলে মারুফুল ইসলাম ঝলক। সামসুল ইসলাম ভুইয়া নৌকা প্রতিক পেয়ে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। তবে ভোটের রাজনীতি ও নেতাকর্মীতে তিনি রয়েছেন অনেক পিছিয়ে যার কারণে তার নিজস্ব ভোট কেন্দ্রে গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিক পরাজিত হয়েছিল। একই অবস্থা তার ছেলের ক্ষেত্রে রাজনীতিতে সে সবচে নতুন মুখ। তারপরও তিনি মনোনয়নের জন্য চেষ্টা করছেন। এদিকে নারায়নগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এডভোকেট হোসনে আরা বাবলি। তিনি সংরক্ষিত মহিলা এমপি ছিলেন। তিনি সোনারগাঁ আসনের জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। সোনারগাঁয়ে ভোটের রাজনীতিতে নেই তার সম্পৃরতা। অপরদিকে মনির হোসেন, আনোয়ার হোসেন, মতিন খাঁন ও জসিমউদ্দিন মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন। আনোয়ার হোসেন ইউপি সদস্য পদে পরাজিত হয়েছিলেন। মনির হোসেন সাবেক এমপি কায়সার হাসনাতে চাচা। ভোটের রাজনীতিতে তিনি নবীন। জসিমউদ্দিন ও মতিন খাঁ কখনোই সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগে দেখা যায়নি। তারাও আওয়ামীলীগের নৌকার দাবিদার।


Logo

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution